ঢাকা, বৃহস্পতিবার 22 March 2018, ৮ চৈত্র ১৪২৪, ৩ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

যৌতুকের দাবিতে টানা ৩ দিন ঘরে আটকে রেখে রূপগঞ্জে গৃহবধূকে পুরো শরীর থেতলে দিলো পাষন্ড স্বামী

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) সংবাদদাতা: নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে যৌতুকের দাবিতে মুন্নি বেগম (৩০) নামে এক গৃহবধূকে টানা তিন দিন ঘরে আটকে রেখে পুরো শরীর থেতলে দিয়ে অমানবিক নির্যাতন চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শুক্রবার থেকে গত সোমবার দুপুরে উপজেলার ভোলাবো ইউনিয়নের চারিতালুক এলাকায় ঘটে এ নির্যাতনের ঘটনা। গৃহবধুকে উদ্ধার করতে গিয়ে তার বাবাকে মারধর করা হয়। গৃহবধূ মুন্নি বেগম কুমিল্লা জেলার লাকসাম থানার নওয়া এলাকার আরব রহমানের মেয়ে। বর্তমানে উপজেলার ভোলাব ইউনিয়নের চারিতালুক এলাকায় বসবাস করে আসছে।
নির্যাতিত গৃহবধূ মুন্নি বেগম জানান, ১২ বছর আগে উপজেলার চারিতালুক এলাকার হাসেন আলীর ছেলে আলী আকবরের সঙ্গে মুন্নি বেগমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর তাদের সংসারে আসিফ (১০), আকিব (১) বছরের দুই ছেলে ও সাথী (১১) নামে একটি মেয়ে সন্তানের জন্ম হয়। সন্তান জন্মের পর থেকেই স্বামী আলী আকবর বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে মুন্নি বেগমের সঙ্গে ঝগড়া করে আসছে। বেশ কিছুদিন ধরে স্বামী আলী আকবর গৃহবধূ মুন্নি বেগমকে তার বাবার বাড়ি থেকে ২ লাখ টাকা যৌতুক এনে দিতে চাপ প্রয়োগ করে আসছিল।
গত শুক্রবার দেবর দেলোয়ার, ও দেলোয়ারের স্ত্রী মর্জিনা বেগমের প্ররোচনায় স্বামী আলী আকবর  গৃহবধূ মুন্নি বেগমকে ফের তার বাবার বাড়ি থেকে ২ লাখ টাকা যৌতুক এনে দিতে বলে। মুন্নি বেগম কোন ধরনের টাকা এনে দিতে পারবে না বলে সাফ জানিয়ে দেয়। যৌতুকের টাকা এনে দিতে অস্বীকার করায় ক্ষিপ্ত স্বামী আলী আকবর মুন্নি বেগমকে টানা তিনদিন ঘরে আটকে নির্যাতন চালায়। তিনদিন পর বিষয়টি মুন্নি বেগমের বাবা আরব রহমান জানতে পেরে স্বামী আলী আকবরের বাড়িতে গিয়ে তার মেয়ের উপর নির্যাতন করার কারন জিজ্ঞাসা করে। নির্যাতন কারণ জিজ্ঞাসা করায় স্বামী আলী আকবর গৃহবধূর বাবা আরব রহমানকেও মারধর করে। আলী আকবর তার ছেলে মেয়েদেরকে রেখে মুন্নি বেগমকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। তার দাবিকৃত যৌতুকের না দিলে মুন্নি বেগমকে বাড়িতে আসতে দেওয়া হবে না বলে হুমকি ধামকি প্রদান করেন। পরে পরিবারের লোকজন মুন্নি বেগমকে আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।
এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান মনির বলেন, এ ধরনের একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত মোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ