ঢাকা, শনিবার 24 March 2018, ১০ চৈত্র ১৪২৪, ৫ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পিএসজির জরিমানা ৪৩০০০ ইউরো 

শাস্তির খড়গ নেমে আসবে এটা জানাই ছিল। সেই শাস্তিটা কি হয়, সেটাই ছিল দেখার। তদন্তের পর সেই শাস্তিটা জানিয়ে দিল উয়েফা। গত ৬ মার্চ গ্যালারিতে দর্শকদের সেই অগ্নি- কাণ্ডের জন্য পিএসজিকে ৪৩ হাজার ইউরো জরিমানা করেছে উয়েফা। জরিমানার পাশাপাশি অগ্নি-কাণ্ড ঘটানো গ্যালারির সেই আতুয়েইল স্ট্যান্ডকে দর্শক-নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। মানে গ্যালারির ওই স্ট্যান্ডটিতে কোনো দর্শককে ঢুকতে দেওয়া যাবে না। এই নিষেধাজ্ঞাটা অবশ্য শুধু চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচের জন্য। নিজেদের ঘরের মাঠে পরবর্তী চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে ওই গ্যালারিতে কোনো দর্শককে বসতে দিতে পারবে না পিএসজি! ফাঁকা গ্যালারি রাখতে হবে তালাবদ্ধ। গত ৬ মার্চ উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোল’র দ্বিতীয় লেগে মুখোমুখি হয় পিএসজি ও রিয়াল মাদ্রিদ। রিয়ালের ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর প্রথম লেগে ৩-১ গোলে হেরে যায় পিএসজি। 

কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে হলে তাই পিএসজিকে নিজেদের ঘরের মাঠ পার্স ডি প্রিন্সেসের ফিরতি লেগে জিততে হতো অন্তত ২-০ ব্যবধানে। পিএসজি তাই ম্যাচটা নিয়েছিল ‘যুদ্ধ’ হিসেবে! পিএসজি জানত, শুধু মাঠের সৈনিকদের দিয়ে দৈত্য রিয়ালকে ২-০ গোলে হারানো সম্ভব হবে না! ফরাসি ক্লাবটি তাই মাঠের যুদ্ধে অতিরিক্ত অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে চরমপন্থী উগ্র সমর্থকদের। উগ্র ওই সমর্থক গোষ্ঠির দায়িত্বছিল হইচই-হট্টোগোল করে রিয়ালের খেলোয়াড়দের জ্বালাতন করা! দায়িত্ব পেয়ে ওই চরমপন্থী সমর্থকরা কাজে নেমে পড়ে ম্যাচের আগের রাত থেকেই। প্যারিসে রিয়ালের খেলোয়াড়েরা যে হোটেলে উঠেছিল, রাতে সেই হোটেলেল বাইরে অবস্থান নেয় ওই সমর্থকরা। চিৎকার-চেচামেচি, নানা রকম স্লোগান, আর ঢাক-ঢোল বাজিয়ে ফ্লেয়ার পুড়িয়ে ধোয়ার্ত পরিবেশ তৈরি করে রিয়ালের খেলোয়াড়দের রাতের ঘুম হারাম করে ছাড়ে। আর পরের দিন রাতে ম্যাচ চলাকালে স্টেডিয়ামকে তো অগ্নিকুন্ডই বানিয়ে ফেলে। ফ্লেয়ার পুড়িয়ে গ্যালারিতে আগুন জ্বালিয়ে দেন সমর্থকরা। পুরো স্টেডিয়ামে এতোটাই ধোয়াচ্ছন্ন হয়ে পড়ে যে, দুদুবার বন্ধ রাখতে হয় মাঠের খেলা। উদ্দেশ্য ছিল প্রতিপক্ষ রিয়ালের খেলোয়াড়দের ভীত-সন্ত্রস্ত করে তোলা। ভয় পেয়ে রিয়ালের খেলোয়াড়েরা যেন নিজেদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে না পারে। কিন্তু পিএসজির সেই উদ্দেশ্য সফল হয়নি। সমর্থকদের ওই বিতর্কিত কর্মকা- রিয়ালের খেলোয়াড়দের মাঠের খেলায় কোনো বিঘ্নই ঘটাতে পারেননি। বরং আরও বেশি উজ্জীবিত হয়ে রিয়ালই ম্যাচটা জিতে নেয় ২-১ ব্যবধানে। উদ্দেশ্য তো সফল হয়ইনি, উল্টো এবার গুণতে হচ্ছে জরিমানার টাকা। গ্যালারির যে অংশটি উগ্র ওই সমর্থকরা নরক বানিয়ে ফেলেছিলেন, সেই আতুয়েইল স্ট্যান্ড নিষেধাজ্ঞার খপ্পরে। ম্যাচ শেষেই ইউরোপিয়ান ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফার কাছে অভিযোগ দায়ের করে রিয়াল। তাদের সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই তদন্তে নামে উয়েফা। উল্লেখ্য যে, রিয়ালের কাছে হেরে পিএসজির এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা স্বপ্ন গুঁড়িয়ে গেছে। এ মৌসুমে তাই তাদের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচ নাই। নিষেধাজ্ঞাটা তাই কার্যকর হবে আগামী মৌসুমে নিজেদের ঘরের মাঠের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ