ঢাকা, শনিবার 24 March 2018, ১০ চৈত্র ১৪২৪, ৫ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শিবসা ব্রিজের এ্যাপ্রোস সড়ক দিয়ে চলাচলে দুর্ভোগ চরমে

খুলনা অফিস : খুলনার পাইকগাছা উপজেলার অভ্যন্তরীণ পৌর সদর-বেতবুনিয়া ভায়া সোলাদানা সড়কের পৌরসভার গাঘেঁষা শিবসা ব্রিজের দুই পাড়ের এ্যাপ্রোস সড়ক ভেঙ্গেচুরে যানবাহন চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়েছে। অত্র সড়কে প্রতিদিন প্রতিনিয়ত বিভিন্ন প্রকার যাত্রীবাহী যানবাহন চলাচল করছে মারাত্মক ঝুঁকি আর অবর্ণনীয় দুর্ভোগ নিয়ে। ছোট-বড় দুর্ঘটনাও ঘটছে প্রতিনিয়ত। এদিকে সম্প্রতি শিবসা ব্রিজের এ্যাপ্রোস সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করা হলেও কাজের গতি-ধরণ দেখে মনে হচ্ছে যেন তামাশা করা হচ্ছে অত্রাঞ্চলের মানুষের সাথে। প্রায় ১৫/২০ দিন আগে থেকে ৪/৫ জন পুরুষ-মহিলা শ্রমিক রাস্তার দু’পাশের ইট তুলে আবারও তা সেখানেই বসাচ্ছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নব্বইয়ের দশকে পাইকগাছা- সোলাদানা সড়কের পৌরসভার গাঘেঁষা শিবসা নদীর উপর ব্রিজ নির্মাণ করা হয়। ব্রিজটি নির্মাণের পর থেকে অত্র সড়কে যাত্রীবাহী বাসসহ বিভিন্ন প্রকার যাত্রীবাহী যানবাহন চলাচল শুরু হয়। অত্র সড়ক দিয়ে উপজেলার সোলাদানা, দেলুটী ও গড়ইখালী ইউনিয়নের বাসিন্দাসহ বটিয়াঘাটা ও দাকোপ উপজেলারও অজ¯্র মানুষজন চলাচল করে আসছে। তবে ব্রিজ ও ব্রিজের এ্যাপ্রোস সড়ক নির্মাণের পর থেকে অদ্যবধি সড়কটি মেরামত বা সংস্কার করা হয়নি। ফলে এ দীর্ঘ ২০/২২ বছরেও এ্যাপ্রোস সড়কটি ভেঙ্গেচুরে বড়-বড় গর্ত হওয়ায় যানবাহন চলাচল একেবারে অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। অত্র সড়কের যাত্রীবাহী ভ্যানচালক ভিলেজ পাইকগাছা গ্রামের ইউনুছ আলী জানান, কোর্টের সামনে থেকে ৩/৪ জন যাত্রী নিয়ে ব্রিজ রোডে যাবার সময় রাস্তা ভাঙ্গার কারণে ভ্যানের এ্যাক্সেল ভেঙ্গে যাচ্ছে প্রায়ই। তাছাড়া রাস্তায় বড় বড় গর্তের কারণে ভ্যান কাতচিত হয়ে অনেক সময় পাল্টি খেয়ে পড়েও যায়। অত্র সড়কে ভাড়ায় মোটর সাইকেলচালক সাগর মন্ডল বলেন, কোর্ট রাস্তার মোড় থেকে ব্রিজ পর্যন্ত প্রায় কোয়ার্টার কিলোমিটার রাস্তা ভেঙ্গেচুরে একেবারে চলাচল অযোগ্য হয়ে পড়েছে। তবুও পেটের দায়ে দুর্ভোগ মেনে নিয়েই চলাচল করছি। ব্রিজের এ্যাপ্রোস সড়কের পার্শ্ববর্তী বাসিন্দা শংকর দত্ত ক্ষোভের সাথে বলেন, প্রতিদিন প্রতিনিয়ত হাজার-হাজার যাত্রীসাধারণ অত্র সড়কে চলাচল করছে। রাস্তাটুকু ভেঙ্গেচুরে যানবাহন তো দূরের কথা পায়ে হেটে চলাচলও দু:সাধ্য ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।
সোলাদানা ইউপি চেয়ারম্যান এস,এম এনামূল হক বলেন, সোলাদানা ও গড়ইখালী ইউনিয়নবাসি ছাড়াও অত্র সড়ক দিয়ে খুলনায় যাতায়াত সহজ হওয়ায় জনসাধারণের চলাচলের চাপ অনেক বেশি। শিবসা ব্রিজের এ্যাপ্রোস সড়কের ভাঙ্গাচুরার জন্য মারাত্মক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে মানুষজনকে। তাছাড়া ব্রিজের দুই পাড়ের গোড়ায় তুলনামূলক অনেক উঁচু নিচু হওয়ায় ভারী যানবাহন ওঠানামা করছে অনেক ঝুঁকি নিয়ে। ব্রিজে উঠতে গিয়ে নিচে পড়ে প্রাণহানি-অঙ্গহানির মত ঘটনাও ঘটছে অহরহ। জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটির অন্তত শিবসা ব্রিজের এ্যাপ্রোস সড়কটুকু দ্রুত সংস্কারের ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগীমহল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ