ঢাকা, শনিবার 24 March 2018, ১০ চৈত্র ১৪২৪, ৫ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জিম্বাবুয়ের বিশ্বকাপে খেলার স্বপ্ন শেষ

দলকে বিশ্বকাপে নিতে শেষ বলে ছক্কা হাঁকাতে হতো ক্রেইগ আরভিনকে। কিন্তু সেই বলে ২ রানের বেশি নিতে পারেননি তিনি। রোমাঞ্চকর ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাছে হারায় বিশ্বকাপ স্বপ্ন গুঁড়িয়ে গেল জিম্বাবুয়ের। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের সুপার সিক্সে নিজেদের শেষ ম্যাচে ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে ৩ রানে জিতেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। সুপার সিক্সে এটাই তাদের প্রথম জয়। জিম্বাবুয়ের হারে বিশ্বকাপ স্বপ্ন টিকে রইল আফগানিস্তান ও আয়ারল্যান্ডের। এই দুই দলের ম্যাচের জয়ী দল খেলবে ২০১৯ বিশ্বকাপে। এই ম্যাচ পরিত্যক্ত হলে রান রেটে এগিয়ে থাকায় বিশ্বকাপে যাবে আয়ারল্যান্ড। ১৯৭৯ সালের পর প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে খেলতে পারবে না জিম্বাবুয়ে। তবে এখনও ক্ষীণ একটা আশা আছে জিম্বাবুয়ের। আয়ারল্যান্ড ও আফগানিস্তান ম্যাচ টাই হলেই কেবল বিশ্বকাপে খেলবে তারা। আফগানিস্তান-আয়ারল্যান্ড ম্যাচ পরিত্যক্ত হলে নেট রান রেটে এগিয়ে থাকায় বিশ্বকাপে যাবে আয়ারল্যান্ড (০.৪৭৪)। তবে ম্যাচ টাই হলে তাদের নেট রান রেট জিম্বাবুয়ের (০.৪২০) চেয়ে কমে যাবে। বৃষ্টির বাধার আগে ৪৭ ওভার ৫ বলে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৩৫ রান করে সংযুক্ত আরব আমিরাত। বৃষ্টি থামলে জিম্বাবুয়ে পায় ৪০ ওভারে ২৩০ রানের লক্ষ্য। স্বাগতিকরা ৭ উইকেটে করে ২২৬ রান। হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে বৃহস্পতিবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে রোহান মুস্তফা ও গোলাম শাব্বেরের ৭৪ রানের জুটিতে ভালো শুরু পায় সংযুক্ত আরব আমিরাত। দুই ব্যাটসম্যানকেই ফেরান অফ স্পিনিং অলরাউন্ডর সিকান্দার রাজা। শাইমান আনোয়ারের সঙ্গে রমিজ শাহজাদের আরেকটি ৭৪ রানের জুটিতে ৩ উইকেটে ১৮০ রানের দৃঢ় ভিতের ওপর দাঁড়ায় দলটি। তবে ১৮ রানের তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় তারা। ৬১ বলে ৫৯ রান করে ফিরেন শাহজাদ। ৩৩ রান করা শাইমানকে বিদায় করেন রাজা। শেষের দিকে ১০ বলে ২২ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন মোহাম্মদ নাভিদ। ৪১ রানে ৩ উইকেট নিয়ে জিম্বাবুয়ের সেরা বোলার রাজা। রান তাড়ায় শুরুটা ভালো হয়নি জিম্বাবুয়ের। ১৮ রানের মধ্যে ফিরে যান দুই ওপেনার। দলীয় ৪৫ রানে ফিরে যান সবচেয়ে বড় ব্যাটিং ভরসা ব্রেন্ডন টেইলর। শন উইলিয়ামসের সঙ্গে ৭৯ রানের জুটি গড়ে বিদায় নেন পিটার মুর। দ্রুত রান তোলা সিকান্দার রাজা ৪২ বলে গড়েন ৬১ রানের জুটি। ২৬ বলে ৩৪ রান করা রাজা ফিরেন মুস্তফার ফুলটস বলে ক্যাচ দিয়ে। দারুণ খেলছিলেন উইলিয়ামস। প্রয়োজনীয়তা নামিয়ে এনেছিলেন ১৯ বলে ২৪ রান। এমন সময়ে মুস্তফাকে সুইপ করতে গিয়ে ধরা পড়েন শর্ট ফাইন লেগে। এক হাতে দুর্দান্ত এক ক্যাচ নেন আমির হায়াত। ৮০ বলে খেলা উইলিয়ামসের ৮০ রানের ইনিংসে পাঁচটি চারের পাশে একটি ছক্কা। পরের ওভারে গ্রায়েম ক্রিমারকে গোল্ডেন ডাকের স্বাদ দেন নাভিদ। অতিথিদের দুটি আঁটসাঁট ওভারে ম্যাচ কঠিন হয়ে যায়। জয়ের জন্য শেষ ওভারে জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ছিল ১৫ রান। নাভিদের করা সেই ওভারে ১১ রানের বেশি নিতে পারেনি স্বাগতিকরা। ৪০ রানে ৩ উইকেট নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সেরা বোলার নাভিদ। শেষের ঝড়ো ব্যাটিং আর দারুণ বোলিংয়ে তিনি জেতেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার। বাছাই পর্ব থেকে আগেই বিশ্বকাপ নিশ্চিত করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তাদের বিপক্ষে রোববারের ফাইনালে খেলবে আফগানিস্তান-আয়ারল্যান্ড ম্যাচের জয়ী দল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

সংযুক্ত আরব আমিরাত: ৪৭.৫ ওভারে ২৩৫/৭ (মুস্তফা ৩১, আশফাক ১০, শাব্বের ৪০, শাহজাদ ৫৯, শাইমান ৩৩, উসমান ৪, আদনান ১০*, রাজা ৮, নাভিদ ২২*; জার্ভিস ০/৩৮, চাতারা ২/৪৯, মুজরাবানি ১/৪০, রাজা ৩/৪১, ক্রিমার ০/৩৪, উইলিয়ামস ১/২৯)

জিম্বাবুয়ে: (লক্ষ্য ৪০ ওভারে ২৩০) ৪০ ওভারে ২২৬/৭ (মিরে ৬, মাসাকাদজা ৭, মুর ৩৯, টেইলর ১৫, উইলিয়ামস ৮০, রাজা ৩৪, আরভিন, ক্রিমার ০, জার্ভিস; নাভিদ কাদির ১/৩৮, আমির রাজা ১/৩৭, মুস্তফা ২/৫৬)

ফল: ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে সংযুক্ত আরব আমিরাত ৩ রানে জয়ী

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: মোহাম্মদ নাভিদ। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ