ঢাকা, সোমবার 26 March 2018, ১২ চৈত্র ১৪২৪, ৭ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

গাজীপুরে অটোরিকশা ছিনতাই ও চালক খুনের দায়ে যুবকের মৃত্যুদণ্ড

গাজীপুর সংবাদদাতা : গাজীপুরে অটোরিকশা ছিনতাই ও চালক খুনের দায়ে এক যুবককে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও দোষ প্রমাণিত না হওয়ায় এজহারভুক্ত অপর তিন আসামী খালাস পেয়েছেন। দণ্ডিত নাঈম ওরফে মহিউদ্দিন নাঈম (২৭), গাজীপুর মহানগরের চত্বর (এটিআই গেইট) এলাকার আব্দুল গফুরের ছেলে। গতকাল রোববার গাজীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এ কে এম এনামুল হক ওই দণ্ড দেন। বিচারক মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি তাকে ১০ হাজার টাকা জারিমানা করা ছাড়াও অপর একটি ধারায় তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন।
খালাস প্রাপ্তরা হলেন গাজীপুর মহানগরের চত্বর এলাকার (নয়াপাড়া) ইদ্রিস আলীর ছেলে হাসান ইমাম ওরফে রাব্বী (২৪), একই এলাকার বাসিন্দা সিরাজুল ইসলামের ছেলে জহিরুল ইসলাম ওরফে ফরহাদ (২৩) ও রেজাউল করিম মৃধার ছেলে রায়হান উদ্দিন ওরফে নীরব (২১)।
গাজীপুর আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) হারিছ উদ্দিন আহম্মদ জানান, স্থানীয় চুন্নু মোল্লার ছেলে জুলহাস মোল্লা কিস্তিতে এলাকায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালাতেন। ২০১৩ সালের ২৮ নবেম্বর সকাল সাড়ে ১১টার সময় অটোরিকশা নিয়ে জুলহাস বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন। পরে স্থানীয়রা ওইদিন সন্ধ্যা ৭টায় গাজীপুর মহানগরের হাতিয়াব নোয়াইলের টেক এলাকার গজারী বনে জুলহাসের গলাকাটা মরদেহ দেখতে পেয়ে জয়দেবপুর থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। তবে তার অটো ও মোবাইল ফোনটির কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। এ ব্যাপারে পরদিন চুন্নু মোল্লা বাদী হয়ে জয়দেবপুর থানায় ওই চারজনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেন। পরে মামলাটি তদন্তের জন্য জয়দেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) নির্দেশে মামলার তদন্তভার ওই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সাইফুল আলম ও গাজীপুর জেলা গেয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ হাসান আংশিক তদন্ত করেন। পরে মামলার তদন্তভার সিআইডিতে স্থানান্তর করা হয়। পরে সিআইডির পরিদর্শক খোন্দকার জাহাঙ্গীর কবীর দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১৬ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।
পরে আদালত সাতজনের সাক্ষ্য শেষে দোষ প্রমাণিত না হওয়ায় তিনজনকে মামলা থেকে খালাস ও নাঈমের মৃত্যু, অর্থদণ্ড ও কারাদণ্ডে রায় ঘোষণা করেন বিচারক। এ সময়া নাঈম আদালতে উপস্থিত ছিলেন।
রাষ্ট্র পক্ষে হারিছ উদ্দিন আহম্মদ এবং আসামী পক্ষে আতাউর রহমান, গাজী পারভেজ আলম ও মাহমুদা সিদ্দিকা মামলাটি পরিচালনা করেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ