ঢাকা, বুধবার 28 March 2018, ১৪ চৈত্র ১৪২৪, ৯ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধরের ব্যক্তিগত জীবন

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল, তিনি সুপার মার্কেটে বাজার করেন, নাপিতের দোকানে অন্যদের পাশে বসে অপেক্ষা করেন, এমনকি সরকারি ভবন নয়, নিজের বাড়িতে থাকাই তাঁর পছন্দ ৷ তিনি আর কেউ নন, বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারী জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল ৷
মার্কেলের নাপিত উডো ভালৎস : ২০১৫ সালে ফোর্বস মাগাজিনের বিবেচনায় বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারী অ্যাঙ্গেলা মার্কেল ৷ উডো ভালৎস (ছবিতে মাঝখানে) গত দশ বছর ধরে মার্কেলের চুল কাটেন ৷ তাঁর কথায়, ‘চ্যান্সেলর হওয়ার আগেও তিনি যেমন সেলুনে অন্যদের সঙ্গে বসতেন, এখনও তাই করেন ৷ তাঁকে কোনো বিশেষ ছাড় দেয়া হয় না৷ অর্থাৎ তিনিও অন্যদের মতো ৬৫ ইউরো দেন ৷ একদম আগের মতো আছেন তিনি৷’
নিজেদের বাড়িতেই থাকেন : বার্লিনের ‘মিউজিয়াম আইল্যান্ড’-এর একটি জাদুঘরের কাছে নিজস্ব, কিন্তু পুরনো একটা ফ্ল্যাটে থাকেন অ্যাঙ্গেলা মার্কেল ও তাঁর স্বামী ইওয়াখিম সাউয়ার ৷ শুধু নিরাপত্তার জন্য দু’জন পুলিশ বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে থাকে ৷ এছাড়া কিন্তু সব কিছু আগের মতো আছে৷ এই যেমন, ছুটি পেলে আজও কাছের উকারমার্ক নামের ছোট্ট শহরে চলে যান দু’জনে৷ সেখানেই তিনি বড় হয়েছেন!
নিজেই বাজার করেন : চ্যান্সেলর মার্কেল সাধারণ সুপার মার্কেটেই বাজার করতে যান, বিশেষ করে যেগুলো একটু বেশি সময় খোলা থাকে৷ বাজার করা সম্পর্কে আঙ্গেলা মার্কেল একবার এক দোকানিকে বলেছিলেন, ‘‘আমার এই অল্প অবসর সময়ে বাজার করার মতো সব কাজই করার চেষ্টা করি, যেমনটা আগে করতাম৷ অবশ্য যখন নিজে পারি না, তখন বাজারের লিস্ট তৈরি করে স্বামীর হাতে তুলে দেই৷’
তিনিই ‘চ্যান্সেলর’ : দোকানের একজন নারী কর্মী জানান, ‘চ্যান্সেলর মার্কেল অন্যান্য ক্রেতার মতোই কিছু খুঁজে না পেলে কোথায় কী রাখা আছে, তা সাধারণ গৃহিণীদের মতোই জানতে চান ৷ তাঁর নিরাপত্তার জন্য দেহরক্ষী সাথে না থাকলে কেউ হয়ত বুঝবেই না যে তিনিই আমাদের ‘অ্যাঞ্জি’ ৷ কর্মীটি আরো জানান, ‘শত ব্যস্ততার মধ্যেও কিন্তু চ্যান্সেলরের মুখে হাসিটুকু লেগে থাকে, যা ভীষণ ভালো লাগে৷’
চ্যান্সেলরের পছন্দ ফ্রেঞ্চ চিজ : জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মার্কেলের ভীষণ পছন্দ ফ্রেঞ্চ চিজ বা পনির, যা তিনি নিজেই কিনতে ভালোবাসেন৷ আর সে কথাই গর্ব করে জানান ডিপার্টমেন্টাল স্টোরের একজন কর্মী৷
ভোজন রসিক মার্কেল : হাতে দামি ব্যাগ নেওয়ার চেয়ে ভালো খাওয়া-দাওয়া মার্কেলের কাছে বেশি গুরত্বপূর্ণ৷ যখন তিনি রান্না করার সময় পান না, তখন স্বামী ইওয়াখিম সাউয়ারকে নিয়ে বার্লিনের ‘কাসামবালিস’ নামের একটি রেস্তোরাঁয় খেতে যান৷ দামি খাবারের চেয়ে অবশ্য ‘গ্রিক মিটবল’-এর মতো সাধারণ খাবারই বেশি পছন্দ বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর এই নারীর৷
বিলাসিতা পছন্দ নয় : অন্যান্য রাজনীতিকদের মতো বিলাসিতা আঙ্গেলা মার্কেলের তেমন পছন্দ নয়৷ বরং সাধারণ জীবনযাপনই তাঁর বেশি ভালো লাগে৷ তাই তিনি যতটা সম্ভব সেভাবেই চলার চেষ্টা করেন স্বামীকে নিয়ে৷
চাই মুক্ত হাওয়া আর হাঁটা-চলা : আঙ্গেলা মার্কেল সময় সুযোগ পেলে স্বামীকে সাথে নিয়ে হাঁটতে বের হন৷ শারীরিক এবং মানসিকভাবে ‘ফিট’ থাকতে মুক্ত বাতাসে হাঁটা-চলা যে ভীষণ জরুরি সেটা তিনি যেন সকলে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন৷  এই না হলে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর নারী!

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ