ঢাকা, শুক্রবার 30 March 2018, ১৬ চৈত্র ১৪২৪, ১১ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

অধিনায়ক হিসেবে এ ঘটনার পূর্ণ দায়িত্ব আমার---------স্মিথ

কেপ টাউন টেস্টে বল ট্যাম্পারিংয়ের ঘটনায় শাস্তি পেতে হয়েছে সেই সময়ের অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথকে। শাস্তির মেয়াদ শেষ হলে আবার হয়তো ফিরে আসবেন মাঠে। কিন্তু ন্যক্কারজনক এ ঘটনায় যে সম্মান হারিয়েছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যান,তা ফিরে পাওয়াটা খুব একটা সহজ হবে না। তবে আবার কোন একদিন নিজের হারানো সম্মান ফিরে পাওয়ার আশা করছেন এই মুহূর্তে সবচেয়ে নিন্দিত এ ক্রিকেটার। সেই সাথে একদিন ক্ষমা পাওয়ারও প্রত্যাশা করছেন। বৃহস্পতিবার দেশে ফিরে সিডনিতে এক সংবাদ সম্মেলনে ২৮ বছর বয়সী এ ক্রিকেটার বলেছেন, ‘যদি এ ঘটনা থেকে ভালো কিছু বের হয়ে আসে, তা হচ্ছে, আমাকে দেখে অন্যরা শিক্ষা নেবে। এটা আমাকে পরিবর্তন করবে। বাকি জীবন এর জন্য আমাকে অনুতপ্ত থাকতে হবে। আমি পুরোপুরি বিধ্বস্ত। 

তবে আমি আশা করি একদিন আমি ক্ষমা পাবো, হারানো সম্মান ফিরে পাবো।’ বল ট্যাম্পারিংয়ের ঘটনার পুরো দায়িত্ব নিজের কাঁধে নিয়ে স্মিথ বলেছেন, ‘আমি স্পষ্ট করে বলছি, অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হিসেবে এ ঘটনার পূর্ণ দায়িত্ব আমার। আমি ভুল করেছি। এবং এ পরিণতিকে মেনে নিয়েছি। এটা নেতৃত্বের ব্যর্থতা, আমার নেতৃত্বের।’ তার সময়ে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়ার দলে বল ট্যাম্পারিংয়ের ঘটনা ঘটেছে দাবি করে স্মিথ আরো বলেছেন, ‘আমার জানা মতে, এর আগে কখনোই অস্ট্রেলিয়া দলে এমনটি ঘটেনি। এটাই প্রথম এবং আর কখনোই এমনটা ঘটবে না।’ বল ট্যাম্পারিংয়ের ঘটনায় স্মিথ, ডেভিড ওয়ার্নার ও ক্যামেরন ব্যানক্রফটের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। স্মিথ ও ওয়ার্নারকে এক বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আর ব্যানক্রফট নিষিদ্ধ হয়েছেন ৯ মাসের জন্য। এছাড়া ওয়ার্নারকে কখনোই অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অধিনায়কত্বের জন্য বিবেচনা করা হবে না। অন্যদিকে নিষেধাজ্ঞা কাটানোর পরের এক বছরের মধ্যে স্মিথও অধিনায়কত্বের জন্য বিবেচিত হবেন না। ইন্টারনেট।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ