ঢাকা, শুক্রবার 30 March 2018, ১৬ চৈত্র ১৪২৪, ১১ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পিকেকের বিরুদ্ধে তুরস্কের পাশে থাকার ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

তুরস্ক ও যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

২৯ মার্চ, আনাদলু এজেন্সি, হুরিয়াত : ইরাকে কুর্দিস্তান ওয়ার্কাস পার্টির (পিকেকে) সন্ত্রাসীদের বিতাড়নে তুরস্কের পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। একই সঙ্গে পিকেকে সন্ত্রাসীদের উপস্থিতি তুরস্কের জন্য হুমকি বলে মনে করছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস। পেন্টাগনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, ইরাকের উত্তরাঞ্চলের সিনজির জেলায় কুর্দিস্তান ওয়ার্কাস পার্টির (পিকেকে) হুমকি রয়েছে। তুরস্কের সঙ্গে উত্তর ইরাকের সীমান্তজুড়ে এই হুমকি বিরাজ করছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্র পিকেকে-কে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করছে। আমরাও ওই অঞ্চল থেকে তাদের বিতাড়িত করতে চাই। ন্যাটোর মিত্র হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র আঙ্কারার পাশে দাঁড়াবে বলেও মন্তব্য করেন জেমস ম্যাটিস। তিনি বলেন, তুরস্কের জন্য পিকেকের বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর। তাই কোনো মাধ্যম ব্যবহার না করে আমরা সরাসরি তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করতে চাই। তুর্কমেনেলি টেলিভিশনের মহাপরিচালক ইয়ালমেন হাসেরগলু বলেন, সিনজির জেলায় প্রায় তিন হাজার পিকেকে সন্ত্রাসী রয়েছে। সেখানে বিভিন্ন সামরিক বিশেষজ্ঞরা তাদের প্রশিক্ষণ দিয়ে যাচ্ছেন। পিকেকে সদস্যদের সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে তিনি এসব কথা বলেন। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান বলেন, সিনজিরকে পিকেকের ঘাঁটি হতে দেয়া যাবে না। জেমস ম্যাটিস বলেন, মানবিজে এ পর্যন্ত তুরস্ক কোনো অভিযানে যায়নি। তবে সেখানে কুর্দিশ পিপলস প্রটেকশন ইউনিটসের (ওয়াইপিজি) বিরুদ্ধে আঙ্কারার সামরিক অভিযানের সম্ভাবনা নিয়ে আলোচনা চলবে।

তিনি বলেন, তুরস্কের সঙ্গে আমাদের আলোচনার পথ খোলা রয়েছে। আমরা সেটিকে এগিয়ে নিতে চাই।

এদিকে তুরস্ক কুর্দিস্তান ওয়ার্কাস পার্টির (পিকেকে) সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ হাক্কারির উঁচু পার্বত্যাঞ্চলে নতুন সামরিকঘাঁটি স্থাপন করেছে। দেশটির নিরাপত্তা সূত্রের বরাতে হুররিয়াত ডেইলি নিউজ এ তথ্য জানিয়েছে। ইরাকি সীমান্তবর্তী হাক্কারি প্রদেশের সেমডিনলি জেলায় সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৪০০ মিটার উচ্চতায় মাউন্ট বালখিয়ায় তুর্কি সেনাবাহিনী এ ঘাঁটি স্থাপন করেছে। ওই জেলায় সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে ১৯ মার্চ থেকে এ পর্যন্ত পুঁতে রাখা ১৪টি বোমা অপসারণ করা হয়েছে। পিকেকে যোদ্ধাদের সীমান্ত অতিক্রম ঠেকাতেই নতুন এ ঘাঁটি নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়। গত ১৭ দিনে তুরস্ক ও উত্তর ইরাকের সীমান্ত থেকে ৩৫৭ পিকেকে যোদ্ধাকে নিউট্রালাইজড করা হয়েছে। সন্ত্রাসীদের হত্যা, আটক কিংবা আত্মসমর্পণ করলে তুরস্কের কর্মকর্তারা সেটিকে নিউট্রালাইজড বলে আখ্যায়িত করেন। উত্তর ইরাকের হাকুর্ক ও কানি রাশ অঞ্চল থেকেও সংগঠনটির গুরুত্বপূর্ণ নেতাসহ ৬৭ জনকে ও কানদিল অঞ্চল থেকেও ৪১ জনকে নিউট্রালাইজ করা হয়েছে। কানদিলে পিকেকের প্রধান কার্যালয় অবস্থিত। তুরস্ক, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন কুর্দিস্তান ওয়ার্কাস পার্টিকে (পিকেকে) সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকাভুক্ত করেছে। ২০১৫ সালের জুলাই থেকে সংগঠনটি তুরস্কের বিরুদ্ধে সশস্ত্র হামলা শুরু করে। এর পর থেকে পিকেকের হামলায় এ পর্যন্ত এক হাজার ২০০ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য ও বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন। যাদের মধ্যে নারী ও শিশুরাও রয়েছে। পিকেকের পক্ষে প্রচার ও সহায়তার জন্য এ পর্যন্ত এক হাজার ৫৯ ব্যক্তি গ্রেফতার হয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ