ঢাকা, রোববার 1 April 2018, ১৮ চৈত্র ১৪২৪, ১৩ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

পুঠিয়ার খালে নারীর লাশ ॥ ট্রাক চাপায় যুবক নিহত

রাজশাহী অফিস : রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার নারদ খালে এক নারীর মরদেহ ভেসে উঠেছে। অন্যদিকে ট্রাকের চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী এক নারী নিহত হয়েছেন।
খালে ভেসে উঠা লাশটি তিনদিন আগে নিখোঁজ হওয়া নারী রজুফা বেগমের (৪০) বলে জানা গেছে। তিনি উপজেলার শিবপুর বিহারিপাড়া গ্রামের মৃত জসিম উদ্দিন ম-লের মেয়ে। পুঠিয়া থানার পুলিশ জানায়, রজুফার স্বামী নেই। গত বুধবার বোনের বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর নিখোঁজ হন তিনি। তারপর স্বজনরা অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাননি। শনিবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার বানেশ্বর ইউনিয়নের রঘুরামপুর এলাকায় নারদ নদীতে তার লাশ ভেসে ওঠায় স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। মরদেহে পচন ধরায় মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পরিবারের লোকজন গিয়ে লাশ শনাক্ত করেন। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়।
ট্রাক চাপায় যুবক নিহত : শনিবার দুপুরে পুঠিয়ায় ট্রাক চাপায় এক মোটরসাইকেল আরোহী যুবক নিহত হন। উপজেলার পৌর এলাকার কালিতলা নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শরিফ (৩০) উপজেলার পীরগাছা গ্রামের জামাল উদ্দিনের ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার দুপুরে শরিফ মোটরসাইকেলযোগে ঝলমলিয়া বাজারে দিকে যাচ্ছিলেন। পথে কালিতলা নামক স্থানে এলে বিপরীত দিক থেকে আসা মাল বোঝাই ট্রাক তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। জনতা ট্রাকটি আটক করলেও ট্রাকের চালক ও হেলপার পালিয়ে যান।
সাপের কামড়ে মৃত্যু : রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৫ দিন আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকা আরিফ হোসেন (২৮) নামের এক ট্রলি চালকের মৃত্যু হেয়েছে। তাকে ১৫ মার্চ পদ্মার চরে বিষাক্ত সাপে দংশন করে। আহত অবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার বেগতিক দেখে দায়িত্বরত ডাক্তার আইসিইউতে রাখে। অবশেষে শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। আরিফ হোসেন বাঘা উপজেলার কলিগ্রামের কাজিপাড়া গ্রামের ইসরাফিল বিশ্বাসের ছেলে। আরিফের মৃত্যুর বিষয়ে নিশ্চিত করেন তার বাবা ইসরাফিল বিশ্বাস। ঘটনার পরের দিন ওই সাপটিকে ঘটনাস্থল থেকে মারা হয় বলে তার বাবা জানান।
বিএনপির ক্ষোভ
রাজশাহীর পুঠিয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনোত্তর সহিংসতা বন্ধের দাবিতে রাজশাহীতে সাংবাদিক সম্মেলন করেন শিলমাড়িয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আবু হায়াত মোহা. আসাদুজ্জামান। তিন তার সমর্থকদের নিরাপত্তার দাবি জানান।
গতকাল শনিবার দুপুরে নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে এই সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আবু হায়াত মোহা. আসাদুজ্জামান। তিনি বলেন, নির্বাচনের পূর্ব মুহূর্ত থেকেই আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে আওয়ামী লীগ পদ প্রার্থী ও তার সমর্থকেরা নানাভাবে এলাকাবাসীকে ভয় ভীতি দেখাতে থাকে। আমি গণসংযোগ করতে গেলেও তারা নানাভাবে বাধা দিতে থাকে। প্রচারণার শেষ দিন পার হলেও তারা মোটর সাইকেল নিয়ে শোডাউন দিয়ে আমার সমর্থকদের ভোট কেন্দ্রে যেতে নিষেধ করতে থাকে। এমন সব অভিযোগ আমি নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনকে জানালেও তারা কোন ব্যাবস্থা গ্রহণ করেনি। পার্শ্ববর্তী দুর্গাপুর উপজেলার আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দসহ বহিরাগত অসংখ্য নেতাকর্মী কোন নির্বাচনী আচরণ বিধির তোয়াক্কা না করেই প্রতিদিন আমার সমর্থকদের হুমকি ধমকি দিতে থাকে। তিনি বলেন, গত ২৩ মার্চ রাতে মোটর সাইকেল শোডাউন দিয়ে ভরতমাড়িয়া গ্রামে এসে ধানের শীষে ভোট না দেয়ার জন্য হুশিয়ারি দেয়। এ সময় আমার দুই কর্মী মুক্তার ও ফরিদকে ধানের শীষে ভোট চাওয়ার অপরাধে বেধড়ক মারপিট করে জখম করে। তিনদিন চিকিৎসার পর আমি থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করি। এরপর রাতোয়াল গ্রামের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাখন আমার দুই কর্মীকে পিটিয়ে যখম করে। তাদের এ সন্ত্রাসী কর্মকা-ে এলাকায় উত্তেজনা থাকে। এরপর কে কোন ভোটকেন্দ্র দখল করবে তা মাইকে ঘোষণা করা হয়। এই বিষয়ে নির্বাচন অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার আশ্বাস দেন ২৭ মার্চের পর কোন বহিরাগত এলাকায় প্রবেশ করবে না । কিন্তু তার কোন প্রতিফলন লক্ষ্য করা যায়নি বরং ওই রাতেই প্রতিটি বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের অস্ত্র দেখিয়ে ভোট কেন্দ্রে না যাওয়ার জন্য হুমকি দিয়ে নারকীয় তা-ব শুরু হয়। এর সাথে যুক্ত হয় পুলিশী হয়রাণী। কোন কোন এলাকায় আমার সমর্থকদের এলাকা ছাড়ার কথা বলা হয়। বিভিন্নভাবে ভাগ হয়ে ২৮ মার্চ রাতে শুরু হয় ভয়াল তা-ব। ওই রাতে সরগাছি গ্রামে আমার কর্মী রফিকুল ইসলামের পায়ে গুলী করে ও তাদের পরিবারের সদস্যদের পিটাতে থাকে। তাদের চিৎকারে আমার চাচাতো ভাই শহীদুল ও রহিদুরকে হকিস্টিক দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। তিনি আরো বলেন, আমার ভোট করার অপরাধে বাসুপাড়া বাজারে মাস্টার আব্দুর রাজ্জাককে লাঞ্ছিত করে তারা দোকানে তালা মেরে দেয়। ভোটের দিন আমার সমর্থকদের মারপিট করে কেন্দ্র থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়। আমার পোলিং এজেন্টদেরও ঢুকতে দেয়া হয়নি। যারা ভোট কেন্দ্রে গেছে তাদের নৌকাতে ভোট দিতে বাধ্য করা হয়। এ বিষয়ে আমি তৎক্ষণাত অভিযোগ করেও কোন প্রতিকার পাইনি। ভোট কেন্দ্রে ১০-১২ জন বহিরাগত প্রবেশ করে নৌকায় অনায়াসে সিল মারতে থাকে। ভোটারদের বাড়ি থেকেও বের হতে বাধা দেয় তারা। নিজ কর্মী সমর্থকদের নিরাপত্তা দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, আমার অনেক কর্মী সমর্থকদের ভোটের আগ মুহূর্ত থেকে এখন পর্যন্ত নানাভাবে নির্যাতন ও হয়রাণীমূলক কর্মকা- চালিয়ে যাচ্ছে। আমার সমর্থকেরা নিরীহ হয়ে অন্যত্র দিন যাপন করছে কারণ প্রাণনাশের ভয়ে তারা বাসায় ফিরতে পারছে না। এ বিষয়ে আমি প্রশাসনের কাছে বারবার বলা সত্ত্বেও কোন প্রতিকার পাইনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, শিলমাড়িয়া ইউনিয়ন যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সোহেল সিরাজী, প্রচার সম্পাদক মঞ্জুর রহমান, ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক এন্তাজ আলী, পুঠিয়া থানা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম মোহাম্মদ প্রমুখ।
বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন
শুক্রবার বিকেলে রাজশাহীর তানোরে বয়ে যাওয়া মওসুমের প্রথম ঝড়ে ঘর-বাড়ির চালাসহ বিভিন্ন রাস্তার গাছ ভেঙে গেছে। ঝড় বয়ে গেলেও বৃষ্টি তেমন হয়নি। এতে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ হয়ে যায়।
ঝড়ের ফলে শুক্রবার বিকেলে ৪টা থেকে তানোরে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ হয়ে যায়। এতে এইচএসসি পরীক্ষার্থীসহ বিভিন্ন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠান পড়ে বিপাকে। ঝড়ে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের গ্রামের ঘর-বাড়ি চালা উড়ে যায় এবং রাস্তার গাছ উপড়ে পড়ে। তানোর উপজেলা অফিস জানায়, ঝড়ে বিভিন্ন এলাকার ঘড়-বাড়িসহ গাছপালা ভেঙে পড়ার খবর পাওয়া গেছে। অনেক এলাকায় বিদ্যুতের তার ছিড়ে গেছে। এছাড়া বড় ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ