ঢাকা, রোববার 1 April 2018, ১৮ চৈত্র ১৪২৪, ১৩ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

গাজীপুরে ৫১ দিন পর কবর থেকে ব্যবসায়ীর লাশ উত্তোলন

গাজীপুর সংবাদদাতা: গাজীপুরের কালীগঞ্জে দাফনের ৫১ দিন পর বুধবার বিকেলে কবর থেকে এক ব্যবসায়ীর লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। উত্তোলন করা লাশটি কালীগঞ্জ পৌর এলাকার ঘোনাপাড়া মৃত আশরাফ আলীর ছেলে সরোয়ার আহমেদ দোলনের (৪০)। তিনি রাজধানী ঢাকার খিলগাঁও এলাকায় ইলেকট্রিক ঠিকাদারের ব্যবসা করতেন। গাজীপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও কালীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. সোহাগ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 
নিহতের স্ত্রী মুন্নী আক্তারের দাবি, ঢাকার খিলগাঁও এলাকায় তার শশুরের ৫ তলা একটি ভবন ছিল। ৩ ছেলে ও ৩ মেয়ের মধ্যে তা ভাগাভাগি হলেও যৌথ মালিকানায় একটি ফ্লাট রয়ে যায়। এ ফ্ল্যাটের মালিকানা নিয়ে গত ৬ ফেব্রুয়ারি নিহতের ভাই-বোনদের মধ্যে এক সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক চলাকালে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে স্বামী দোলনকে মারধর করা হলে তিনি সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলেন এবং মারা যান।  কিন্তু স্বামীর ভাই-বোন ও তার আত্মীয়-স্বজনদের দাবি দোলনকে তারা মারধর করেননি। তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। পরে তড়িঘড়ি করে কোন প্রকার ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ নিজ গ্রাম ঘোনাপাড়ায় না দাফন করে তার নানা বাড়ি পশ্চিম খলাপাড়া এলাকায় দাফন করা হয়। ঘটনার ১০দিন পর ১৫ ফেব্রুয়ারি স্বামীকে হত্যার অভিযোগ এনে তিনি নিজে বাদী হয়ে দোলনের ভাই-বোনদের আসামী করে খিলগাঁও থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। 
ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও খিলগাঁও থানার এসআই মো. শাহআলমের বরাত দিয়ে কালীগঞ্জ থানার এসআই আলালউদ্দিন জানান, মামলার বাদীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে ও তদন্তের স্বার্থে মৃত্যুর সঠিক কারণ নির্ণয় করতে দোলনের মরদেহ উত্তোলনের জন্য পুলিশ আদালতের শরণাপন্ন হন। এরপর পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে কবর থেকে মরদেহ উত্তোলনের জন্য আদালত পুলিশকে নির্দেশ দেন। ওই আদেশ পেয়ে গাজীপুরে কালীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. সোহাগ হোসেনের উপস্থিতিতে বুধবার বিকেলে কবর থেকে দোলনের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ