ঢাকা, রোববার 1 April 2018, ১৮ চৈত্র ১৪২৪, ১৩ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ভোলাহাটে বিদ্যুৎ বিভ্রাটে বোরো চাষ ব্যাহত

ভোলাহাট (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) সংবাদদাতা: চাঁপাইনবাবগঞ্জের শত ভাগ বিদ্যুতায়নের ভোলাহাটে বিদ্যুতের ভেল্কেবাজিতে বোরো উৎপাদনের লক্ষমাত্রা অর্জন নিয়ে কৃষকেরা হতাশ হয়ে পড়েছেন।
কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, ভোলাহাট উপজেলায় এ বছর ৫হাজার ৮ শত ৭৫ হেক্টর জমিতে বোরো চাষ হচ্ছে। গত বছরের চেয়ে ৪শত হেক্টর  এ বছর বেশী বোরো চাষ হচ্ছে। এদিকে বরেন্দ্র উন্নয়ন কতৃপক্ষের আওতায় ২১৮টি বিদ্যুৎ চালিত গভীর নলকূপে বোরো চাষ হচ্ছে বলে বিএমডিএ সূত্র জানায়। এছাড়াও ব্যক্তিগত প্রায় ৫০টি বিদ্যুৎ চালিত গভীর নলক’প রয়েছে। যথাযথ বিদ্যুৎ সরবরাহ না হলে বোরো উৎপাদন লক্ষমাত্রা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হওয়ার আশংকা করছেন কৃষকেরা। এ ছাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও প্রানি সম্পদ দপ্তরে বিদ্যুতের কারণে ফ্রিজে রাখা ঔষধ নষ্ট হওয়ার আশংক রয়েছে। অপরদিকে আগামী ২ এপ্রিল থেকে এইচএসসি পরীক্ষা শুরু। বিদ্যুতের ভেল্কেবাজিতে পড়া-লাখা করতে বাধার মূখে পড়ছেন পরীক্ষার্থীরা। অন্যদিকে অফিস সময় বিদ্যুৎ না থাকায় কাজকর্ম গুটি যাচ্ছে অফিসগুলোর। এতে নাগরিক সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন নাগরিকেরা। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম বলেন, পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ না হলে বোরো উৎপাদন লক্ষমাত্রা ব্যাহত হতে পারে। তিনি বোরো চাষের উৎপাদন লক্ষমাত্রা অর্জনের জন্য সংশ্লিষ্ট বিদ্যুৎ বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবী করেন। ভোলাহাট পল্লী বিদ্যুৎ সাব-জোন অফিসের এজিএম সোহেল রানার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ভোলাহাট উপজেলায় মোট ১০ মেগাওয়াট বিদ্যুতের প্রয়োজন। কিন্তু বর্তমানে আড়াই ও ৩ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ হচ্ছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে বলেও কিছু হচ্ছে না বলে জানান।  বিদ্যুতের ভেল্কেবাজিতে ভোলাহাট উপজেলার কৃষক, পরীক্ষার্থীসহ বিভিন্ন পেশাজীরা হতাশা প্রকাশ করে দ্রুত পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবী করেছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ