ঢাকা, সোমবার 2 April 2018, ১৯ চৈত্র ১৪২৪, ১৪ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রেম করে বিয়ে করার অপরাধে রংপুরে দিনমজুরের পুত্রকে গাছে বেঁধে অমানুষিক নির্যাতন

রংপুর অফিস: প্রেম করে বিয়ে করার অপরাধে রংপুরের তারাগঞ্জে এক দিনমজুরের পুত্রকে গাছে বেঁধে অমানষিক নির্যাতন করেছে প্রভাবশালী এক মেয়ের পরিবার। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও সেখানেও প্রভাব খাটায় মেয়ের পরিবার। ফলে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে অন্যের বাড়িতে গিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি। প্রত্যক্ষদর্শী ও নির্যাতনের শিকার যুবকের পরিবার সুত্রে জানা গেছে, তারাগঞ্জ উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি ইউনিয়নের সর্দারপাড়ার দিনমজুর আনছার আলীর পুত্র নুরন্নবী (১৮) সঙ্গে একই এলাকার ধনাঢ্য জয়নাল আবেদীনের কন্যা জোহরা খাতুনের (১৬) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মেয়ের পরিবার বিষয়টি মেনে না নেয়ায় জোহরা খাতুন নূরনবীর সাথে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করে রংপুর মহানগরীর গনেশপুরে আত্মীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। কৌশলে জোহরার পরিবার বিয়ে মেনে নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে গত ১৫ মার্চ উভয়কে বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর জোহরার পিতা জয়নাল আবেদীন, মামা খায়রুল ইসলাম, খরু দেওয়ানী, রঞ্জুশাহ, হালিম মিয়া, আব্দুল হামিদ মিয়া, আউয়াল শাহ, বিপুল শাহ সবাই মিলে নুরনবীকে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন চালায়। এসময় তারা নূরনবীর গোপনাঙ্গেও লাঠি ও ইট দিয়ে পিটায় এবং গলা রশি পেঁচিয়ে রাখে। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় নূরনবীর পিতা আনছার আলী তাকে উদ্ধার করে প্রাইম হাসপাতালে ভর্তি করায়। কিন্তু প্রভাবশালী জোহরার পরিবার হাসপাতালেও চিকিৎসা নিতে দেয় নি নুরনবীকে। তাদের ভয়ে নুরনবীকে নগরীর পাঠানপাড়ায় এক আত্মীয়ের বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তারাগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত ফরিদ আহমেদ জানান, বিষয়টি আমি মৌখিকভাবে শুনেছি। তবে কোন এজহার এখনও পাইনি। রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম জানান, এ ব্যপারে অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ