ঢাকা, সোমবার 2 April 2018, ১৯ চৈত্র ১৪২৪, ১৪ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে নির্যাতন স্বামী ও ননদ আটক

লালমনিরহাট সংবাদদাতা: জেলার হাতীবান্ধা উপজেলায় যৌতুকের টাকা না পেয়ে পাষন্ড স্বামী ও তার দুই বোন মিলে শাহানারা বেগম (২৬) নামের চার সন্তানের জননীকে ব্লেড দিয়ে মাথা ন্যাড়া করে দিয়েছে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার  দুপুরে স্বামী ও ননদকে আটক করে থানা পুলিশ। নির্যাতিত গৃহবধু বর্তমানে হাতীবান্ধা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি রয়েছেন। সম্প্রতি উপজেলার সিন্দুর্না ইউনিয়নের উত্তর হলদীবাড়ি এলাকায় এ ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটে। পরে রাতেই ওই গৃহবধু স্বামীসহ ৪ জনের নামে থানায় অভিযোগ করেন।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, উপজেলার টংভাঙ্গা ইউনিয়নের মৃত ঝুল্লুর রহমানে ছোট মেয়ে শাহানারা বেগমের ১০ বছর আগে বিয়ে হয় সিন্দুর্না ইউনিয়নের উত্তর হলদীবাড়ি (৫ নং ওয়ার্ড) এলাকার মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে বাবলু মিয়ার সাথে।
বিয়ের সময়ে ২ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবি করলে মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে জামাইকে ব্যবসা বাণিজ্য করে খাবার জন্য ১ লক্ষ টাকা দেন। এর মধ্যে শাহানারা বেগম ৪ সন্তানে মা হন। এদিকে বাবলু মিয়া আরও ১ লক্ষ টাকা অথবা তার শশুরের বসতভিটা ১০ শতাংশ জমির বিক্রি করে টাকা নিয়ে আসার জন্য তার স্ত্রীকে চাপ দেন। শাহানারা বেগম এতে রাজি না হলে তার উপর নেমে আসে অমানুষিক নির্যাতন।
আসামী বাবলু মিয়া (৩৫), তার বড় ভাই আব্দুল গফুর (৪০), স্বামী পরিত্যক্ত দুই বোন মহুরন নেছা (৩৭) ও আমেনা বেগম (৩০) মিলে যৌতুকের টাকা নিয়ে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে লাঠি দিয়ে শাহানারা বেগমকে বেধড়ক মারধোর করে আহত করে। পরে সকলেই মিলে শাহানারা বেগমের হাত-পা বেধে ও ভয়-ভীতি দেখিয়ে ব্লেড দিয়ে মাথা ন্যড়া করে ঘরে তালাবন্ধ করে রাখে। পরে শাহানারা বেগম ঘরের বেড়ার বাঁধন কেটে কৌশলে ভুট্রা ক্ষেতের ভিতর দিয়ে পালিয়ে এসে হাতীবান্ধা হাসপাতালে ভর্তি হন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ