ঢাকা, সোমবার 2 April 2018, ১৯ চৈত্র ১৪২৪, ১৪ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বনদস্যু হায়দার নিহত

খুলনা অফিস : র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে হায়দার নামের (৩৪) এক বনদস্যু নিহত হয়েছে। গতকাল রোববার ভোর রাতে বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার কৈবজ্ঞদাসকাটি এলাকায় (রামপাল তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উত্তর পাশে) র‌্যাব-৮ এর সঙ্গে এই বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনাটি ঘটে। ওই স্থান থেকে একটি দেশী এক নালা বন্দুক, দু’টি কাটা রাইফেল, একটি এলজি সাটারগান, ১২ রাউন্ড তাজা গুলী ও ৩১ রাউন্ড গুলীর খোসা উদ্ধার করা হয়। 

র‌্যাব-৮ এর উপ-অধিনায়ক মেজর সজীবুল ইসলাম জানান, গতকাল রোববার বিকেলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের হাতে অস্ত্র ও গুলী দিয়ে সুন্দরবনের তিনটি বনদস্যু বাহিনীর সদস্যদের আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি চলছিল। তারই অংশ হিসেবে র‌্যাবের একটি দল শনিবার দিনগত রাত তিনটার দিকে সুন্দরবনের বনদস্যুদের তিন বাহিনীর সদস্যদের রামপাল উপজেলার সাপমারী এলাকায় আনতে যায়। এসময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্ধকারের মধ্যে একদল দুর্বৃত্ত গুলী ছোড়ে। এসময় র‌্যাবও পাল্টা গুলী চালায়। প্রায় দশ মিনিট গোলাগুলীর পর ওই দুর্বৃত্তরা পিছু হটলে সেখান থেকে গুলীবিদ্ধ একজনের মরদেহ ও বেশ কয়েকটি অস্ত্র ও গুলী উদ্ধার করা হয়। পরে স্থানীয়রা এসে লাশটি হায়দার আলী নামের এক ব্যক্তির বলে শনাক্ত করেন।

নিহত হায়দার আলী সুন্দরবনের বনদস্যু দলের সক্রিয় সদস্য দাবি করে র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘বনদস্যুরা যখন স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে সরকারের কাছে আত্মসমর্পণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সে সময়ে দস্যুদের অতর্কিত হামলা আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখানোর শামিল। এই তিনটি বনদস্যু দলের সদস্যরা যাতে সুন্দরবনে দস্যুতা ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে না পারে তা ভেস্তে দিতে অজ্ঞাত বনদস্যু দল পরিকল্পিতভাবে এই হামলা চালিয়েছে। কোন বনদস্যু দল এই হামলা চালিয়েছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’

র‌্যাব-৮ এর ডিএডি আব্দুল খালেক জানান, সুন্দরবনের তিনটি বনদস্যু বাহিনীর ২৭ জন সদস্য রোববার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে অস্ত্র দিয়ে আত্মসমর্পন করার কারণে র‌্যাবের পক্ষ থেকে এই অঞ্চলে টহল জোরদার করা হয়। শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে ওই এলাকায় একটি গুলীর শব্দ শুনে র‌্যাবের একটি দল ওই এলাকায় যায়। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে দস্যুরা গুলী বর্ষণ করে। এক পর্যায়ে র‌্যাবও পাল্টা গুলী চালায়। প্রায় আধঘণ্টা বন্দুকযুদ্ধের পর বনদস্যুরা সুন্দরবনের গহীনে পালিয়ে যায়। পরে র‌্যাব সদস্য ও এলাকাবাসী ওই এলাকায় তাল্লাশি করে এক বনদস্যুর গুলীবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে। স্থানীয়রা ওই গুলীবিদ্ধ লাশটি বনদস্যু হায়দারের লাশ বলে সনাক্ত করেছে। উদ্ধারকৃত লাশ, আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদ রামপাল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লুৎফর রহমান জানান, নিহত বনদস্যুর লাশ ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় রামপাল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে ওসি জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ