ঢাকা, সোমবার 2 April 2018, ১৯ চৈত্র ১৪২৪, ১৪ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মনোহরদীতে মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

নরসিংদী সংবাদদাতা: নরসিংদীর মনোহরদীতে কামরুল ইসলাম (২৫) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে এক মাদরাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার কৃষ্ণপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষনের শিকার ওই ছাত্রী স্থানীয় একটি মাদরাসা থেকে এবছর দাখিল পরীক্ষা দিয়েছে। অভিযুক্ত কামরুল একই এলাকার সুরুজ মিয়ার ছেলে। ঘটনার পর থেকে কামরুল পলাতক রয়েছে।
ধষৃনের শিকার ছাত্রীর পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে,  বৃহস্পতিবার বিকেলে ছাত্রীটি বাড়ির পার্শ্ববর্তী চাচার বাড়িতে যাওয়ার পথে কামরুল তাঁর গতিরোধ করে। পরে ছাত্রীটির মুখ চেপে পার্শ্ববর্তী দেওয়ান আলীর নির্জন পরিত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তাঁর হাত-পা বেঁধে জোড়পূর্বক ধর্ষন করে। ধর্ষন শেষে ছাত্রীটিকে ঘরের ভেতরে আটকে রেখে বাহির থেকে দরজা লাগিয়ে পালিয়ে যায়। দীর্ঘসময় চেষ্টার পর ছাত্রীটি তাঁর হাতের বাঁধন খুলে জানালা দিয়ে চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। এ ঘটনা ম্ধানীয় চেয়ারম্যানকে জানালে তিনি থানায় যাওয়ার পরামর্শ দেন। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতেই তাকে মনোহরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
কৃষ্ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. এমদাদুল ইসলাম আকন্দ বলেন, ঘটনা শুনে আমি মেয়ের বাড়ীতে গিয়েছি। নির্যাতিতার পরিবারকে থানায় যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।
মনোহরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফখরুদ্দিন ভূঁইয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে গতকাল শুক্রবার বিকেলে বলেন, এ ঘটনায় এখনো মামলা দায়ের হয়নি। ধর্ষণের শিকার মেয়েটির পরিবারের লোকজনকে থানায় অভিযোগ দায়ের করার জন্য বলা হয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ