ঢাকা, বুধবার 4 April 2018, ২১ চৈত্র ১৪২৪, ১৬ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খুয়েটের তৃতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠান আজ ৩৮ গ্রাজুয়েটকে স্বর্ণপদক দেবেন রাষ্ট্রপতি

 

খুলনা অফিস : খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েটে) তৃতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠান আজ ৪ এপ্রিল বুধবার অনুষ্ঠিত হবে। ওইদিন স্নাতক পর্যায়ে ভালো ফলাফলের ভিত্তিতে ৩৮ জন কৃতী গ্রাজুয়েটের হাতে ‘বিশ্ববিদ্যালয় স্বর্ণপদক’ তুলে দেবেন রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর মো. আবদুল হামিদ। তবে, এবারের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে কোনও জমকালো আয়োজন থাকবে না। ময়মনসিংহের ভালুকায় গত ২৪ মার্চের ঘটনায় কুয়েটের চার মেধাবী শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। 

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ জুড়ে নির্মিত হয়েছে বিশাল সমাবর্তন প্যান্ডেল এবং মঞ্চ। ক্যাম্পাস জুড়ে বিরাজ করছে সাজসাজ রব, বইছে উৎসবমুখর পরিবেশ। রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের আগমন উপলক্ষে পুরো ক্যাম্পাসজুড়ে এবং শহরের বিভিন্ন স্থানে শোভা পাচ্ছে সমাবর্তন ফেস্টুন। রাষ্ট্রপতিকে বরণ করতে ফুলবাড়ীগেটে নির্মাণ করা হয়েছে তোরণ। ক্যাম্পাস জুড়ে শোভা পাচ্ছে স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি, একই সঙ্গে রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর মো আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত প্যানা, ফেস্টুন এবং প্লাকার্ড। সমাবর্তন সফল করতে গঠিত একটি স্টিয়ারিং কমিটি এবং ২১টি উপ-কমিটি দিনরাত নিরলসভাবে তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। 

সব অপেক্ষার অবসান করে বুধবার দুপুর ২টা ৫৫মিনিটে সমাবর্তন শোভাযাত্রা সহকারে রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সলরের সমাবর্তন মূল প্যান্ডেলে আগমন করবেন। বিকেল ৩টায় জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হবে, ৩টা ১মিনিটে পবিত্র ধর্মগ্রস্থসমুহ থেকে পাঠ, ৩টা ৮মিনিটে রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সলর কর্তৃক সমাবর্তন অনুষ্ঠানের উদ্বোধন ঘোষণা, ৩টা ৯মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর স্বগত বক্তব্য রাখবেন, ৩ টা ১৪ মিনিটে ডিগ্রি প্রদান পর্ব, ৩টা ২০ মিনিটে রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সলর কর্তৃক পিএইচডি ডিগ্রি প্রাপ্তদের সনদপত্র প্রদান, ৩টা ২৩ মিনিটে রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সলর কর্তৃক বিশ্ববিদ্যালয় স্বর্ণপদক প্রাপ্তদের পদক প্রদান, ৩টা ৩২ মিনিটে বিশেষ অতিথির বক্তব্য প্রদান, ৩টা ৩৭ মিনিটে সমাবর্তন বক্তার বক্তব্য, পৌণে ৪টায় ক্রেস্ট বিনিময়, ৩টা ৪৮মিনিটে রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সলর ভাষণ দেবেন, ৪টা ৫৮মিনিটে রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সলর কর্তৃক সমাবর্তন অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা, ৩টা ৫৯ মিনিটে জাতীয় সংগীত পরিবশেন এবং বিকেল ৪টায় রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সলর সমাবর্তন স্থল ত্যাগ করবেন।

মংলা বন্দর পরিদর্শনে যাবেন: আজ বুধবার মংলা বন্দর পরির্দশনে যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এ সময় তিনি কয়েকটি প্রকল্পের উদ্বোধন এবং ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। এছাড়া বন্দরের ৬৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর অনুষ্ঠানেও যোগ দেবেন। ুমংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান কমডোর ফারুক হাসান জানান, রাষ্ট্রপতি প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপনের পাশাপাশি ডিজিটাল পদ্ধতিতে দু’টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও আরও দু’টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন।

 পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) এর আওতায় ফিনল্যান্ড থেকে ক্রয় করা বন্দরে তেল অপসারণকারী জাহাজ পশুর-১, পশুর নদী থেকে রামপাল তাপ বিদ্যুৎ প্রকল্পের ছয় কিলোমিটার ড্রেজিং প্রকল্পের উদ্ধোধন এবং বন্দরের ৩ ও ৪ নং জেটি নির্মাণ কাজের ভিত্তি বসাবেন রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ। পরে রাষ্ট্রপতি রাত ৮টা ১০ মিনিটে মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করবেন। পরদিন বৃহস্পতিবার তার সুন্দরবন ভ্রমণের কথা রয়েছে। উল্লেখ্য, ১ ডিসেম্বর বন্দর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিবস পালিত হলেও রাষ্ট্রপতির আগমন উপলক্ষে তা পিছিয়ে ৪ এপ্রিলে আনা হয়েছে বলে জানায় বন্দর কর্তৃপক্ষ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ