ঢাকা, বৃহস্পতিবার 5 April 2018, ২২ চৈত্র ১৪২৪, ১৭ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আতাউর রহমান ছিলেন  রাজশাহীর গণমানুষের  জনপ্রিয় নেতা

রাজশাহী অফিস : রাজশাহীর বিশিষ্ট রাজনীতিক, কেন্দ্রীয় জামায়াতে ইসলামীর সাবেক নায়েবে আমীর ও রাজশাহী মহানগরীর সাবেক আমীর জননেতা মো. আতাউর রহমানের নামাজে জানাযায় নেমেছিল জনতার ঢল। জানাযাপূর্ব বক্তব্যে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ তাদের দেয়া বক্তৃতায় আতাউর রহমানকে রাজশাহীর গণমানুষের জনপ্রিয় নেতা হিসেবে উল্লেখ করেন।

নগরীর তেরখাদা মহিলা কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত জানাযায় ইমামতি করেন জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য মাওলানা আবদুল হালিম। জানাযার আগে বক্তব্য দেন বিএনপি’র চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও নগর বিএনপি’র সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, নগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শফিকুল হক মিলন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার ও জামায়াতে ইসলামীর রাজশাহী জোন পরিচালক অধ্যাপক তাসনীম আলম। মিজানুর রহমান মিনু তার বক্তব্যে বলেন, আতাউর রহমান ছিলেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। অথচ তাকে বর্তমান সরকারের নির্যতনের শিকার হতে হয়েছে। এই নির্যাতনের কারণেই তিনি অসময়ে মৃত্যুর মুখে পতিত হলেন। তাকে শহীদের মর্যাদা দেয়া উচিত। মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, আতাউর রহমান একদিকে যেমন ছিলেন আপোষহীন ও দৃঢ়চিত্তের নেতা তেমনই ছিলেন বিনয়ী ও হাস্যোজ্জ্বল মানুষ। সাধারণ মানুষের সম্মান অর্জনে তিনি সমর্থ হয়েছিলেন। জানাযায় রাজশাহী মহানগরী ছাড়াও আশেপাশের কয়েকটি জেলা-উপজেলা থেকে বিপুল সংখ্যক মানুষ অংশগ্রহণ করেন। তার প্রচুর সংখ্যক ছাত্র ও সহকর্মীও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ