ঢাকা, বৃহস্পতিবার 5 April 2018, ২২ চৈত্র ১৪২৪, ১৭ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নেত্রকোনায় হাওড় অঞ্চলে ধান কাটা শুরু

দিলওয়ার খান, নেত্রকোনা : এবছর নেত্রকোনায় বোরোর বাম্পার ফলন হয়েছে। ইতোমধ্যেই হাওরাঞ্চলে বোরো ধান কাটা শুরু হয়েছে। তবে কোনো প্রকার প্রাকৃতিক দুর্যোগের কবলে না পড়লে গত বছরের ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে পারবেন বলে আশাবাদী কৃষকরা।

জেলা কৃষি অফিসের তথ্যমতে, এবছর নেত্রকোনায় বোরোর আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ লাখ ৮১ হাজার ২৩৮ হেক্টর। অর্জিত হয়েছে ১ লাখ ৮৪ হাজার ৯৩০ হেক্টর। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ হাজার ৬৯২ হেক্টর জমিতে বেশি আবাদ হয়েছে ধান। আর হাওরাঞ্চলে বোরোর আবাদ হয়েছে ৪১,০১০ হেক্টর জমিতে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে কৃষকের কষ্ট স্বার্থক হবে এবছর।

 কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিলাশ চন্দ্র পাল বলেছেন, এবছর আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে সপ্তাহখানেকের মধ্যে হাওরাঞ্চলে পুরোদমে বোরো ধান কাটা শুরু হবে। এবছর ফলন ভালো হয়েছে। কৃষকরা তাদের কষ্টার্জিত ফসল ঘরে তুলতে সক্ষম হবে বলেও আমরা আশাবাদী। তিনি বলেন সরকার কৃষি পূণর্বাসনে ডিএপি ও এমপিও সার ব্যবহার করায় হাওড় অঞ্চলের কৃষক বাম্পার ফলনের মুখ দেখেছে। হাওড় অঞ্চলে এই প্রথম রাসায়নিক ডিএপি ও এমপিও সার ব্যবহৃত হয়েছে।

এদিকে কৃষকরা বলছেন, হাওরে বোরোর ফলন খুব ভালো হয়েছে। ধান পাকতে শুরু করেছে। কোন কোন জায়গায় ধান কাটা শুরু হয়েছে। এক সপ্তাহ পরে পুরোদমে ধান কাটা শুরু হবে। আগাম বন্যা না এলে এবার বেশি ফসল ঘরে ওঠবে। আর ফসল ঘরে তুলতে পারলে গত বছরের ক্ষতি কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে।

নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম গতকাল হাওড় অঞ্চলের ধান কাটা উদ্বোধন করেন, তিনি বলেন হেক্টর প্রতি ৩.৯ মেট্রিক টন চাউল উৎপন্ন হবে। আশাতীত ফলন হওয়ায় গত বছরের অকাল বন্যায় ফসল নষ্ট হওয়ায় কৃষকগণ ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ