ঢাকা, বৃহস্পতিবার 5 April 2018, ২২ চৈত্র ১৪২৪, ১৭ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বাচ্চু মেম্বার গ্রুপের আহত মঙ্গলের মৃত্যু টান টান উত্তেজনা ফের সংঘর্ষের আশঙ্কা

মাধবদী (নরসিংদী) সংবাদদাতা: মাধবদীর পূর্বাঞ্চল নরসিংদী সদর উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের বগারগোত গ্রামে আওয়ামী লীগ সমর্থক বাচ্চু মেম্বার ও নরসিংদী জেলা আ’লীগের দু’জন প্রভাবশালী নেতার মদদপুষ্ট কামাল গ্রুপের মধ্যে ভয়াবহ টেটা যুদ্ধে ২০জন মারাত্মক আহতদের মধ্যে মঙ্গল মিয়া চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যাওয়ার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় উত্তেজনা বেড়ে যায় বলে স্থানীয় শান্তি প্রিয় জন সাধারণ জানিয়েছেন। উল্লেখ্য গত ২৩ মার্চ ভোরে এ সংঘর্ষের ঘটনায় টেটাবিদ্ধ ডেঙ্গু মিয়ার ছেলে মঙ্গল মিয়া ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। মঙ্গলের মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলকায় ফের উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এবং থেমে থেমে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলছে। এ অবস্থায় গত ১ এপ্রিল রোববার সকালে খোঁজ নিয়ে জানাযায় পুরো চর এলাকায় টান টান উত্তেজনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ। 

পূর্ব সংঘর্ষের ঘটনায় নরসিংদী মডেল থানায় ২৬ মার্চ মৃত ডেঙ্গু মিয়ার ছেলে মোঃ রবিউল বাদী হয়ে মৃত সুলতান মিয়ার ছেলে কামালকে প্রধান আসামী করে ৪৩ জনের নামে একটি হত্যা মামলা নং ৭১ দায়ের করলেও গত ১ এপ্রিল রোববার পর্যন্ত আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা ও হুমকি দিতে থাকলেও পুলিশ কোন আসামীকে গ্রেপ্তার করছেনা এমন অভিযোগ করেন বাচ্চু মেম্বার সহ নিরীহ এলাকাবাসী। 

উল্লেখ্য গত ২২ মার্চ বৃহস্পতিবার নরসিংদী স্টেডিয়াম মাঠে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের জনসভায় সামনে উপস্থিত হওয়া নিয়ে বাচ্চু মেম্বার ও কামাল গ্রুপের মধ্যে বাকযুদ্ধ হয় পরে তা দু’দলে বিভক্ত হয়ে সংর্ঘষের সূত্রপাত হয়। পরদিন ভোরে কামাল ৫৫ থেকে ৬০ জনের সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে টেটা, বল্লম, দা, চাপাতি সহ  দেশীয় ধারালো অস্ত্র নিয়ে বাচ্চু মেম্বারের বাড়িতে আক্রমন করলে উভয় পক্ষের মাঝে ভয়াবহ সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সংঘর্ষের সময় বাচ্চু মেম্বারকে হত্যার উদ্দেশে  মামলার ৩নং আসামী সৈয়দ আলীর হুকুমে ৪ নং আসামী বুরুজ মিয়ার ছেলে  ইউছুফ টেটা ছুড়ে মারলে বাচ্চু মিয়া মাটিতে পড়ে গিয়ে প্রাণে বেঁচে যায়। পূনরায় ৩নং আসামী টেটা ছুড়ে মারলে বাচ্চু মিয়ার লুঙ্গিতে লেগে মাটিতে পড়ে যায়। এসময় ডেঙ্গুর ছেলে মঙ্গল মিয়া বাচ্চু মেম্বারকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে ১নং আসামী কামাল মিয়া টেটা দিয়ে ডেঙ্গু মিয়ার ছেলে মঙ্গল মিয়াকে মেরে ফেলবে বলে হুমকি দিয়ে টেটা ছুড়ে মারলে মঙ্গল মিয়ার বাম পায়ে টেটাবিদ্ধ হয়ে গুরুতর জখম হয় এবং প্রচুর রক্তক্ষরন হতে থাকে। পরদিন ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। 

এ ঘটনায় আশংকা জনক অবস্থায় গুরুতর জখম হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছে বগারগোত গ্রামের মৃত মুজাফ্ফরের ছেলে সয়ফুল মুল্লুক, হারেছের ছেলে জাকারিয়া, ইমান আলীর ছেলে জাকারিয়া, মৃত সওদা মিয়ার ছেলে দানিছ মিয়া, হবি মিয়ার মেয়ে আরজিনা বেগম, জহর আলীর ছেলে হবি মিয়া সহ ১০/১২ জন। এর মধ্যে ৫জন আশঙ্কা জনক অবস্থায় মৃত্যুর প্রহর গুনছে বলে জানাগেছে। এলাকাবাসী জানায় কামাল পূর্বে বিএনপি’র রাজনৈকিত দলের হয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করেছিল। 

সম্প্রতি আ’লীগে যোগদান করে নরসিংদী জেলা আ’লীগের একজন প্রভাবশালী নেতার ঘনিষ্ট ভাজন হয়ে এলাকায় নাম ভাঙ্গিয়ে ব্যাপক সন্ত্রাসী ও চাদাঁবাজী করে চলেছে বলে জানায় স্থানীয় শান্তি প্রিয় মানুষ। এ ব্যাপারে কামালকে বেশ ক’বার চেষ্টা করেও মোবাইল ফোনে তাকে পাওয়া না যাওয়ায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ