ঢাকা, শনিবার 7 April 2018, ২৪ চৈত্র ১৪২৪, ১৯ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রশ্নপত্রের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণাকারী চক্রের ‘হোতা’ গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার : পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র দেওয়ার প্রলোভন দেখিনো প্রতারণাকারী একটি চক্রের ‘ হোতাকে’ গ্রেফতারের কথা জানিয়েছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার রাজধানীর শাহজাহানপুরে অভিযান চালিয়ে মো. এহসানুল কবির নামে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয় বলে গতকাল শুক্রবার র‌্যাবের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এহসানুল ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গি থানার গোরিয়ালি গ্রামের মো. বাবুল মিয়ায় ছেলে। তাকে মালিবাগ বাজার রোডের শেলটেক ড্রিম ১৫৩/১, ১/বি নম্বর ফ্ল্যাট থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানানো হয় বিজ্ঞপ্তিতে।

র‌্যাব বলছে, এহসানুল বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে প্রলোভন দেখিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছে টাকা নিয়ে ভুয়া প্রশ্নপত্র আদান-প্রদান করতেন।“নিজের হোয়াটাঅ্যাপ ÔPer Question 300 টাকা  HSC  এবং ফেইসবুকে ‘Kusen Deta  নামে আইডি খুলে প্রশ্নফাঁসের প্রচারণা চালাত, ওইসব আইডিও অ্যাডমিনও সে।”

গত কয়েক বছর ধরে বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্ন পরীক্ষার আগের রাতে ও পরীক্ষার দিন সকালে ফেইসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। গত এসএসসির প্রায় সবগুলো পরীক্ষার প্রশ্নই পরীক্ষার দিন সকালে ফেইসবুকের মাধ্যমে ফাঁস হয়ে যায়।

প্রশ্ন ফাঁসরোধে চলতি এইচএসসি পরীক্ষার আগে সরকার বেশ কিছু পদক্ষেপ নেওয়ার এখনও এই পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে ভুয়া প্রশ্নপত্র তৈরি করে তা বিক্রির চেষ্টার অভিযোগে বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

র‌্যাব বলছে, এহসানুল দীর্ঘদিন ধরে প্রশ্ন দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণা চালিয়ে আসছিলেন। শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে তিনি টাকা নিতে বিকাশের মাধ্যমে। এরকম ত্রিশটির বেশি গ্রুপের অ্যাডমিনদের সঙ্গে তার যোগাযোগ ছিল। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গ্রেপ্তার এহসানুলের হোয়াটাসঅ্যাপ গ্রুপের সদস্য সংখ্যা এক হাজারের বেশি। নামে-বেনামে ফেইসবুক ও হোয়োটসঅ্যাপে অনেক গ্রুপ খুলেছেন এহসানুল। “সবাইকে প্রশ্ন দিব, তবে ঙৎরমরহধষ ছাত্র হতে হবে, আগে ঈড়সসড়হ, পরে টাকা’, ‘প্রশ্ন আউট হওয়া মাত্রই আমি তোমাদের দিয়ে দিব, রিয়েল প্রশ্ন বের হলে আমিই দিব, তোমাদের বলতে হবে না”- এরকম বক্তব্য সম্বলিত পোস্ট দিয়ে এহসানুল শিক্ষার্থীদের প্রলুব্ধ করতেন বলে জানানো হয় র‌্যাবের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ