ঢাকা, শনিবার 7 April 2018, ২৪ চৈত্র ১৪২৪, ১৯ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিশ্ব বিখ্যাত শেল মেরিন লুব্রিকেন্টস এখন বাংলাদেশে

চট্টগ্রাম ব্যুরো : বিশ্ব বিখ্যাত শেল মেরিন লুব্রিকেন্টস বাংলাদেশের বাজারে এসেছে। এর একমাত্র পরিবেশক পোর্টল্যান্ড গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান এমএম অ্যাসোসিয়েটস। প্রতিষ্ঠানটি সাশ্রয়ী মূল্যে উচ্চমান সম্পন্ন এ মেরিন লুব্রিকেন্টস দেশী-বিদেশী জাহাজে ব্যবহারের জন্য বাজারজাত করবে। শেল মেরিন লুব্রিকেন্টের কারিগরি ও গুণগত মান জানাতে গত বুধবার সন্ধ্যায় চিটাগাং ক্লাব অডিটরিয়ামে পোর্টল্যান্ড গ্রুপের ব্যবস্থাপনায় মেরিন লুব্রিকেন্টস বিষয়ক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমোডর ইয়াহ্ইয়া সৈয়দ (সি), বিসিজিএমএস, এনডিসি।

এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন স্থানীয় শেল মেরিন বিজনেস ম্যানেজার মিজান আল কবির। সভাপতিত্ব করেন পোর্টল্যান্ড গ্রুপের এমডি মিজানুর রহমান মজুমদার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পোর্টল্যান্ড গ্রুপের পরিচালক জহিরুল কাইয়ুম। এ ছাড়া কোস্টগার্ড চট্টগ্রাম জোনের প্রধান ক্যাপ্টেন ওয়াসিম মাকসুদ, ড্রাইডকের জিএম ফাইন্যান্স ক্যাপ্টেন নসুরুল্লাহ, ওয়েস্টার্ন মেরিন লিমিটেডের ডিএমডি আরিফুর রহমান, পোর্টল্যান্ড গ্রুপের পরিচালক নূরুল হোসেন মজুমদার, জাকির হোসেন, রবিউল হোসেন বাবু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মিজান আল কবির বলেন, প্রত্যেক দেশের অভ্যন্তরে ও আন্তর্জাতিক রুটে চলাচলরত জাহাজের লুব্রিকেন্টস ক্রয়কে ব্যয় হিসেবে গণ্য করা হয়। গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে মূলত এটি ব্যয় নয়, এক ধরনের বিনিয়োগ। গবেষণায় দেখা গেছে, একটি জাহাজে প্রতি মাসে যে পরিমাণ ব্যয় হয়, তার মধ্যে লুব্রিকেন্টস ব্যয় মাত্র দশমিক শূন্য ৫ শতাংশ। ব্যবহারকারী ও সরবরাহকারীদের সচেতনতার অভাবে কখনো কখনো মানহীন লুব্রিকেন্টস ব্যবহার করা হয়। ফলে জাহাজের ইঞ্জিন অতি দ্রুত বিকল হতে থাকে। কমে যায় জাহাজের আয়ু। আবার কখনো কখনো বড় ধরনের বিপর্যয় নেমে আসে। এতে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হন জাহাজ মালিকরা। এ জন্য প্রয়োজন সর্বোচ্চ মানের মেরিন লুব্রিকেন্টস।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ