ঢাকা, শনিবার 7 April 2018, ২৪ চৈত্র ১৪২৪, ১৯ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শ্রীপুরে গলাকেটে স্ত্রীকে খুন ॥ স্বামী পলাতক

গাজীপুর সংবাদদাতা : গাজীপুরের শ্রীপুরে দাম্পত্য কলহের জেরে গলাকেটে গার্মেন্টস কর্মী এক নারীকে খুন করেছে তার পাষ- স্বামী। শুক্রবার নিহতের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী পলাতক রয়েছে। নিহতের নাম মনোয়ারা পারভীন (২২)। সে শ্রীপুর পৌর এলাকার কেওয়া পশ্চিম খন্ড গ্রামের মনির হোসেনের মেয়ে। 

নিহতের বড় ভাই রমজান মিয়া জানান, ঢাকায় বসবাস করার সময় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে মনোয়ারা পারভীনের সঙ্গে পরিচয় হয় মোশারফ হোসেন সিয়াম ওরফে শুভ (২৮)। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সিয়াম দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ থানা এলাকার ওয়াজেদ আলীর ছেলে। এরজের ধরে প্রায় ৭ মাস আগে মনোয়ারা পারভীনকে গোপনে বিয়ে করে সিয়াম। বিয়ের বিষয়টি মনোয়ারা পরিবারের লোকজন জানতে পেরে তাদের বিয়ে মেনে নেয়। বিয়ের পর মনোয়ারা তার স্বামীকে নিয়ে মা-বাবার সঙ্গে শ্রীপুরের কেওয়া পশ্চিম খন্ড গ্রামের প্রশিকা মোড় এলাকায় আব্দুর রাজ্জাক মিয়ার ভাড়া বাড়িতে বসবাস শুরু করে। মনোয়ারা স্থানীয় মারিয়া ফ্যাশনের টাইম কিপার ও সিয়াম বাড়ির পার্শ্ববর্তী প্রিমিয়াফ্লেক্স প্লাস্টিক লিমিটেড কারখানায় অফিস সহায়ক পদে চাকরি নেয়। বিয়ের পর থেকে নানা বিষয়াদি নিয়ে প্রায়শঃ তাদের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হতো আবার তা মিটেও যেতো। বৃহস্পতিবার রাতে কারখানা থেকে বাড়ি ফিরে রাতের খাবার খেয়ে তারা দু’জনেই একত্রে ঘুমাতে যায়। শুক্রবার বেলা ১১টা পর্যন্ত মনোয়ারা ও সিয়ামের কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে বাড়ির লোকজন তাদের ডাকাডাকি করে। এক পর্যায়ে তারা ঘরে গিয়ে বিছানার ওপর মনোয়ারার গলাকাটা রক্তাক্ত লাশ পড়ে থাকতে দেখে। ঘটনার পর থেকেই নিহতের স্বামী সিয়াম পলাতক রয়েছে।

শ্রীপুর মডেল থানার এসআই মাহমুদুল হাসান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহতের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে ময়ানতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। এ সময় লাশের পাশ থেকে একটি ছোরা (এন্টিগ্রেটার) উদ্ধার করা হয়েছে। ধারালো অস্ত্র দিয়ে নিহতের গলাকাটা এবং কাঁধ ও পেটে জখমের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ধারালো ছোরা (এন্টিগ্রেটার) দিয়ে গলাকেটে স্ত্রীকে হত্যার পর তার স্বামী সিয়াম বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ