ঢাকা, রোববার 8 April 2018, ২৫ চৈত্র ১৪২৪, ২০ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ব্রাজিলের প্রথম কালো বিচারপতি প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হতে পারেন

সুপ্রিম কোর্টের প্রথম কালো সদস্য জাওকিম বারবোসা

৭ এপ্রিল, রয়টার্স : ব্রাজিলের সাবেক প্রধান বিচারপতি ও দেশটির সুপ্রিম কোর্টের প্রথম কালো সদস্য জাওকিম বারবোসা গত শুক্রবার মধ্যবামপন্থি দল ‘ব্রাজিলিয়ান সোশালিস্ট পার্টিতে’ (পিএসবি) যোগ দিয়েছেন। আগামী অক্টোবর মাসে অনুষ্ঠিতব্য প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি প্রার্থী হতে পারেন। তিনি নিজের প্রার্থিতার বিষয়ে এখনও দলের কাছ থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না পাওয়ার কথা জানালেও, দলের নেতারা জানিয়েছেন, জুন মাসে পিএসবির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে তার নাম ঘোষণা করা হতে পারে। দুর্নীতিবিরোধী ভাবমূর্তির কারণে তাকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে শক্তিশালী প্রার্থী মনে করছে জরিপ সংস্থা ইউরেশিয়া। নির্বাচিত হলে তিনিই হবেন ব্রাজিলের প্রথম কালো প্রেসিডেন্ট।

৬৩ বছর বয়সী বারবোসা আগে কখনও রাজনৈতিক পদে আসীন হননি। কিন্তু ২০১২ সালে ভোট কেনা সংক্রান্ত রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়নের এক মামলার রায় দিয়ে নন্দিত হয়েছিলেন তিনি। ওই রায়ে সাবেক বামপন্থি প্রেসিডেন্ট লুলা ডি সিলভার ঘনিষ্ঠ তিন সহকর্মীর সাজা হয়েছিল। ২০১৪ সালে ব্রাজিলের সুপ্রিম কোর্ট থেকে অবসর নেওয়ার পর নিয়মিত বিভিন্ন জরিপে সম্ভাব্য প্রেসিডেন্ট হিসেব তার নাম উঠে আসতে দেখা গেছে। রয়টার্স লিখেছে, সামনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি বর্তমান সরকারবিরোধী ভোটারদের পছন্দের প্রার্থী হয়ে দেখা দিতে পারেন।

বারবোসা নিজে তার প্রেসিডেন্ট প্রার্থিতা সম্পর্কে বলেছেন, ‘পিএসবির সঙ্গে আমার যেরকম কথা হয়েছে, তাতে প্রার্থী হওয়া না হওয়া নিয়ে আমি ভাবনাচিন্তা করার সময় পাবো।’ তিনি জানিয়েছেন, পিএসবি প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে তার নাম এখনও চূড়ান্তভাবে নির্ধারণ করেনি। তবে আশার কথা শুনিয়েছেন ‘ব্রাজিলিয়ান সোশালিস্ট পার্টির কর্মকর্তারা। তারা রয়টার্সকে বলেছেন, জরিপের ফলাফলে বারবোসার অবস্থান ভালো। দুর্নীতির দায়ে লুলার ওয়ার্কার্স পার্টির দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নেওয়া ভোটাররা বারবোসাকে বেছে নিতে পারেন। দুর্নীতির দায়ে লুলা ডি সিলভার কারাদ- হয়েছে। ব্রাজিলিয়ান সোশালিস্ট পার্টির সংখ্যাগরিষ্ঠ সদস্য আগামী জুন মাসের সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে বারবোসাকে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করার পক্ষে। পিএসবির নেতা কার্লোস সিকেইরা রয়টার্সকে বলেছেন, ব্রাজিলের রাজনীতি দুর্নীতির কেলেঙ্কারিতে জর্জরিত। ভোটাররা বারবোসার মত সৎ ও বিশ্বস্ত বিকল্প প্রার্থীকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ