ঢাকা, রোববার 8 April 2018, ২৫ চৈত্র ১৪২৪, ২০ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মাজা ভাঙা বিএনপির আন্দোলনের ক্ষমতা নেই ---খাদ্যমন্ত্রী

 

স্টাফ রিপোর্টার: খাদ্য মন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, বিএনপি একটি মাজা ভাঙা দল, এ কারণে আন্দোলনে সরকার পতনের স্বপ্ন কোনদিন পূরণ হবে না। আন্দোলন করার মত কোন ক্ষমতার তাদের নেই। 

গতকাল শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা ব্যারিস্টার জাকির আহাম্মদের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন- ঢাকা মহানগর দক্ষিণের আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, বরিশাল জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট তালুকদার ইউনুছ, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সম্পাদক কামাল চৌধুরী, তাঁতী লীগ সভাপতি সাধনা দাস গুপ্তা, শাহবাগ থানা আওয়ামীলীগ জি এম আতিক, আওয়ামী লীগ নেতা আল মামুন সরকার, শেখ সামছুদ্দোহা প্রমুখ।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন, আপনারা হুমকি দেন-আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারের হটাবেন। কথায় আছে- যার হয় না নয় মাসে, সেটা ৯ দিনে!

এতদিনেই পারলেন না, আর এখন আন্দোলন করবেন। আন্দোলন করে সরকার পতন ঘটাবেন। আপনাদের মতন মাঝা ভাঙা দলের আন্দোলনের স্বপ্ন সফল হবে না। জনগণ কোন আন্দোলন করতে চায় না। উন্নয়ন চায়।

বিএনপির নেতাদের সমালোচনা করে কামরুল ইসলাম আরও বলেন, আপনারা তো কেবল প্রেস বিফিং, সংবাদ সম্মেলন নির্ভর হয়ে পড়েছেন। মাঠেই যান না। আমরা বিরোধী দলের সময়, শত অত্যাচারের পরও মাঠ ছাড়িনি। আপনারা তো মাঠে নামার সুযোগ পান, লিফলেট বিতরণ করেন। আপনাদের তো আন্দোলন করার সাহস নেই। শুধু আন্দোলনের হুমকি দেন। আওয়ামী লীগ কোন হুমকিতে ভয় পায় না।

এসময় খালেদা জিয়ার কারাগারে থাকা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে কোন ক্ষোভ বা অসন্তোষ নেই বলে দাবি করেন খাদ্যমন্ত্রী।

খাদ্য মন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেতারা বলছেন, সরকার নাকি বিএনপিকে ভাঙার চেষ্টা করছেন। আমি বলতে চাই- সরকার বিএনপিকে ভাঙার চেষ্টা করছে না, কোন দলকেই ভাঙার কাজ সরকার বা আওয়ামী লীগ করে না। আমাদের এ ধরনের কোন ফর্মূলা নেই। এগুলো আপনারা করেছেন-বিভিন্ন সরকারে থাকাকালে।

তিনি বলেন, বিএনপি ভাঙবে কি না, একত্রে থাকবে সেটা আপনাদের বিষয়। বিএনপিতে একজন ফেরারি সাজাপ্রাপ্ত আসামীর নেতৃত্ব অনেকেই মানতে চান না। তাকে ঘৃণা করে। ঘৃণা করার কারণে বিএনপি ভাঙতেও পারে। কারণ বিএনপির শুভ বুদ্ধির অনেক নেতা-কর্মীরা কোন ফেরারী সাজাপ্রাপ্ত আসামীকে পছন্দ করেন না। এ কারণে ভবিষ্যতে বিএনপি খন্ড-বিখন্ড হবে এটাই স্বাভাবিক। জনগণ এমনই মনে করছে।

বিএনপি নেত্রীর অসুস্থতা নিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, আজকেই বিএনপি নেত্রীকে অসুস্থতার কারণে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে নেওয়া হয়েছে। তিনি (খালেদা জিয়া) একজন রাজনীতিবিদ, দুইবার প্রধানমন্ত্রী ছিলেন, কারাবিধি অনুযায়ী যা যা পাওয়ার সব সুবিধাই তিনি পাবেন। এটা নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করার কিছু নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ