ঢাকা, সোমবার 9 April 2018, ২৬ চৈত্র ১৪২৪, ২১ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মানারাত ভার্সিটিতে এমআইইউ মাস্টার প্রেজেন্টার কম্পিটিশন এর গ্রান্ড ফাইনাল অনুষ্ঠিত

মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে গতকাল শনিবার এমআইইউ মাস্টার প্রেজেন্টার কম্পিটিশন এর  গ্রান্ড ফাইনাল গুলশান ক্যাম্পাসের ফুয়াদ আল খতিব অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৩০ টি দলের মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার মধ্য দিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে শাকিরা ও আরমিনের দল “এলিট” ও রানার আপ হয়েছে রাঈয়ান, সাকিব ও জাবেরের দল “ব্লু টাই” এবং দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছে জুবাইর, আরিফ ও ফয়সালের দল “টিম-৪১”। 

মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বিজনেস ক্লাবের উদ্যোগে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড, আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক, দি ক্যাম্পাস মিরর, এ ব্রুড সলিউশন ও কুহেল লাইফ স্টাইল। মিডিয়া পার্টনার ছিল দৈনিক নয়া দিগন্ত। বিজয়ীদের হাতে নগদ অর্থ, সনদ ও সম্মাননা পদক তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। স্কুল অব  বিজনেস এন্ড ইকোনোমিক্সের ডিন প্রফেসর হারুন অর রশিদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত  ছিলেন  বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. উমার আলী। বিশেষ অতিথি ছিলেন বোর্ড অব ট্রাস্টির সদস্য প্রফেসর এ টি এম ফজলুল হক,  বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার হাফিজুল ইসলাম মিয়া, দৈনিক নয়া দিগন্তের জেনারেল ম্যানেজার(মার্কেটিং) মোঃ জহিরুল ইসলাম, কুহেলির ব্যবস্থাপনা পরিচালক   সাফিয়াতুন্নেসা ঝুমু, স্কুল অব আর্টস এন্ড হিউম্যানিটিসের ডিন প্রফেসর হেমায়েত হোসাইন খান।  

এছাড়াও প্রোগ্রামে উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের মডারেটর ও সহকারী অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ ও সহকারী মডারেটর আশিকুন্নবী ও সালেহ মোঃ আরমান, বিজনেস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট সায়েম ও সেক্রেটারি মুশফিক সহ শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারি ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। 

প্রধান অতিথি অংশ নেওয়া দলগুলোকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন,  ছাত্রছাত্রীদের মেধা বিকাশে এ ধরনের প্রতিযোগিতার গুরুত্ব অপরিসীম। এ সব প্রতিযগিতার মাধ্যমে আগামী দিনের যোগ্য    নেতৃত্ব তৈরীর পাশাপাশি দেশে প্রতিথযশা বক্তা ও উপস্থাপক  তৈরির ক্ষেত্র প্রস্তুত হবে বলে আমি আশা করি।  

বিশেষ অতিথি জহিরুল ইসলাম ছাত্র-ছাত্রীদের মেধা বিকাশে যুগোপযোগি এ ধরনের প্রতিযোগিতা আয়োজন করায় মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান। 

প্রতিযোগিতা উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সাজানো হয় পুরো ক্যাম্পাস। দুই সপ্তাহ ধরে বিভিন্ন গ্রুপের উপ¯’াপনা শোনেন বিজ্ঞ বিচারকবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ