ঢাকা, সোমবার 9 April 2018, ২৬ চৈত্র ১৪২৪, ২১ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

হিটে মেজবাহ পঞ্চম শিরিন ষষ্ঠ

কামরুজ্জামান হিরু গোল্ড কোস্ট, অস্ট্রেলিয়া থেকে: সাঁতার ও ভারোত্তোলনের মত ব্যর্থ হয়েছেন বাংলাদেশেরই দুই এ্যাথলেট মেজবাহ আহমেদ ও শিরিন আক্তার। গোল্ড কোস্ট কমনওয়েলথ গেমসে ট্র্যাক এন্ড ফিল্ডে পাত্তাই পেলেন না বাংলাদেশের সাত বারের দ্রুততম মানব মেজবাহ। একই অবস্থা দেশের ছয়বারের দ্রুততম মানবী শিরিনেরও। কারারা স্টেডিয়ামে গতকাল শুরু হয়েছে ‘মাদার অব গেমস’ খ্যাত অ্যাথলেটিক্স। প্রথমদিনই ট্র্যাকে নামেন বাংলাদেশের দু‘জন। দুপুরে শিরিন মহিলাদের ১০০ মিটার স্প্রিন্টের প্রথম রাউন্ডে ১ নম্বর হিটে দৌঁড়ে সাতজনের মধ্যে ষষ্ঠ হন। দৌড় শেষ করতে তিনি সময় নেন ১২.৭২ সেকেন্ড। ২০১৪ সালে গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে হিটে শিরিনের টাইমিং ছিল ১২.৮৭ সেকেন্ড। এবার গোল্ড কোস্টে কিছুটা হলেও নিজেেেক ছাড়িয়ে গেছেন তিনি। 

একই ভেন্যুতে পুরুষদের ১০০ মিটার স্প্রিন্টের প্রথম রাউন্ডে ৬ নম্বর হিটে ট্র্যাকে নামেন মেজবাহ। ১০.৯৬ সেকেন্ড সময়ে দৌঁড় শেষ করে তিনি ৭ জনের মধ্যে পেয়েছেন পঞ্চম স্থান। এদিকে ১০০ মিটারে ব্যর্থ শিরিন আগামীকাল ট্র্যাকে নামবেন  ২০০ মিটার স্প্রিন্টের হিটে। গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসে ২৬.৪১ সেকেন্ড সময় নিয়ে ২০০ মিটারের দৌঁড় শেষ করেছিলেন বাংলাদেশের দ্রুততম এই মানবী। এবারের কমনওয়েলথ গেমসে এই ইভেন্টের হিটে তিনি কেমন করেন তাই এখন দেখার অপেক্ষা। 

হিট শেষে মেজবাহ মিডিয়াকে এড়িয়ে গেলেও কথা বলেন শিরিন। তিনি দাবি করেন, কমনওয়েলথ গেমসে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে এটাই তার সেরা টাইমিং। তার কথা, ‘গ্লাসগো কমনওয়েলথ গেমসে এই ইভেন্টে আমার ইলেক্ট্রনিক টাইমিং ছিল ১২.৮৭ সেকেন্ড। রিও অলিম্পিকে ১২.৯৯। আর গোল্ড কোস্টে ১২.৭২ সেকেন্ড সময়ে দৌঁড় শেষ করেছি। তাই আমি বলবো এখানে সামর্থ্য অনুযায়ী খারাপ করিনি। যদিও দেশে হ্যান্ড টাইমিংয়ে আমি ১২.৩০ সেকেন্ডে দৌঁড় শেষ করে দ্রুততম মানবীর খেতাব পেয়েছি।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ