ঢাকা, মঙ্গলবার 10 April 2018, ২৭ চৈত্র ১৪২৪, ২২ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কবিতা

এ কিসের পদধ্বনি

মহিমা ইসলাম

 

গণতন্ত্রের নামে উচ্ছৃঙ্খলতা

স্বাধীনতার নামে স্বেচ্ছাচার

ধর্ম-নিরপেক্ষতার নামে ধর্মহীনতা

সমাজতন্ত্রের নামে ব্যভিচার।

মুখে বলি মোরা পরাধীন নই,

কাজে অকাজে কেবল হই চই,

ঐতিহ্যের নামে ভীন সংস্কৃতি

সভ্যতার নামে শুধু নগ্নতা ॥

স্বার্থের তরে শুধু কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি

শাসনের নামে কথার ফুলঝুরি,

দমনের নামে চলেছে আটকানো

বিচারের নামে চলে সহিংসতা।

আইনের নামে বেআইনী কাজ 

প্রমোদের নামে পরকিয়া প্রেম

ভালোবাসার নামে বিকৃত রুচি

শ্রদ্ধার নামে চলে পূজা-অর্চনা।

স্ফুর্তির নামে চলে বেহায়াপনা,

শিক্ষার নামে কেবল ধোঁকাবাজী,

পরীক্ষার নামে নকলের দাবী!

ভালো কাজে নেই কোনো উদ্দীপনা।

নারী অধিকার বলে চিৎকার;

আসলে হয় নারী অবমাননা-

বস্ত্রহরণ ও চ্যাংদোলা করণ,

আরো আছে কত শত নির্যাতন।

 

সবকিছু যেন ওলট-পালট;

ভয়ানক এ কিসের পদধ্বনি!

কানে কানে এসে বলে যায় যেনো

ভয়ংকর! সেই শব্দই শুনি !!!

 

সাবধান হও হে মানবকূল-

এ নহে গো তোমার শেষ ঠিকানা।।

 

বাস্তবিকতা

মারজানা মিলি

 

উগ্র পথিক নেমেছে পথে

ধূলামলিন দেহকোষে

বক্ষে তারা সেপেছে পেরেক

হিংসা, বিদ্বেষ, অমানবিকতাও শিরকের।

 

উহাদের নিশ্বাসে ধরণী ভারী

প্রান্তরে তাই শীর্ণ, জীর্ণ, শিশু নারী

লাখো সবে উঠেছে রাসায়নিকের ধোঁয়ায়

ফিনকি দিয়ে ঝরছে খুন তপ্ত বালুকাময়।

 

খোলা চরনে শিশু চলে মরুভুমির পানে

বাঁচতে হবে নিতে হবে বদলা

এই পণ অন্তরে রেখে।

 

ফিরবে আবার বীরের বেশে

নতুনেরা কালেমার পতাকা হাতে

বীরাঙ্গনারা তাই মৃত্যু মাখে

কংক্রিট, পাথর  আর ধ্বংসস্তুপে

প্রজন্ম রেখে যায় সোনালি স্বপ্ন মেখে।

 

কাটবে ধোঁয়া,মিটবে শত্রুতা, উগ্রতা

ফুটবে কালেমার ফুল

আজও আমরা নীরব, বিশ্ব নীরব

এ আমাদের ভুল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ