ঢাকা, মঙ্গলবার 10 April 2018, ২৭ চৈত্র ১৪২৪, ২২ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মালঞ্চা ইউপি উপনির্বাচন একটি ইতিহাস

 

মোঃ সাইফুল ইসলাম, কাহালু (বগুড়া): কাহালু উপজেলা এই প্রথম বারের মত একজন মহিলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করলেন মর্জিনা বেগম। গত বৃহস্পতিবার নির্বাচনে মালঞ্চা ইউনিয়নয় বিএনপি নেতা ও মালঞ্চা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মরহুম আব্দুল মোত্তালেব মন্ডলের স্ত্রী বিএনপি দলীয় মহিলা প্রার্থী মর্জিনা বেগম (ধানের শীষ মার্কা) নিয়ে নির্বাচন করে ৮ হাজার ৫৪৬ পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি উপজেলা আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থী (নৌকা মার্কা) উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও মালঞ্চা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ডাঃ আব্দুল হাকিম পেয়েছেন ৭ হাজার ৩১৬ ভোট। ভোট শুরুর প্রথম থেকেই প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে মহিলা ভোটাদের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ করা গেছে। কোন ভোট কেন্দ্রে পুরুষ ভোটাদের লাইন চোখে না পড়লেও মহিলা ভোটাদের লাইন গুলো ছিল চোখে পড়ার মত। মালঞ্চা ইউনিয়নের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান মর্জিনা বেগম কাহালু উপজেলার নারহট্ট ইউনিয়নের শিকড় গ্রামে জন্ম গ্রহন করেন। ১৯৭৯ সালে এইচ এসসি পাশ করেন। মালঞ্চা ইউনিয়নের মাগুড়া গ্রামে আব্দুল মোত্তালেব মন্ডলের সাথে তার বিবাহ হয়। আব্দুল মোত্তালেব মন্ডল ছিলেন একজন রাজনীতিবিদ ও মালঞ্চা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। মর্জিনা পেষায় একজন গৃহীনি, তিনি ২ ছেলে সন্তানের মা। তিনি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়ে কাহালু উপজেলায় ইতিহাস গড়লেন।এর আগে উপজেলায় কোন মহিলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হননি।

     তার সাথে কথা বলা হলে তিনি জানান ইউনিয়ন বাসী আমাকে ভালবেসে বিপুল ভোটে বিজয়ী করায় ইউনিয়নের ভোটার ভাই-বোন ও বিএনপি দলীয় প্রার্থী করায় দল এবং বিএনপি’র জেলা উপজেলার সকল স্তরের নেতা-কর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞ। আমার প্রথম কাজ হবে দলের প্রতি আনুগত থেকে ন্যায় নিষ্ঠার সাথে ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনা করা এবং পরিষদের সদস্যদের সাথে নিয়ে মরহুম স্বামীর উন্নয়ন মূলক অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করা। আর এজন্য আমি ইউনিয়নবাসী ও প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ