ঢাকা, মঙ্গলবার 10 April 2018, ২৭ চৈত্র ১৪২৪, ২২ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জনগণ একদিন শেখ হাসিনার অ্যাকাউন্টের খবর নেবে --------ড. মোশাররফ

গতকাল সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে শফিউল বারী বাবু ও ইয়াসিন আলী মুক্তি পরিষদের উদ্যোগে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ সকল নেতাকর্মীর মুক্তির দাবিতে আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন -সংগ্রাম

 

স্টাফ রিপোর্টার : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে বিভিন্ন ইস্যুতে অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে উল্লেখ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, জনগণ এসব অ্যাকাউন্টের খবর একদিন নেবে এবং তার বিচারও করবে। গতকাল সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে ‘শফিউল বারী বাবু, ইয়াসীন আলী মুক্তি পরিষদ’ আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় তিনি এ কথা বলেন।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে অ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে গেছে। শেখ হাসিনার ক্ষমতায় আসার পর পরই পিলখানায় ঘটনা ঘটেছে। এটার কিন্তু সম্পূর্ণ রিপোর্ট বের হয়নি। এটা অ্যাকাউন্টে জমা হচ্ছে। শেয়ার বাজার লুট করে লাখ লাখ মানুষকে পথে বসানো হয়েছে সেটারও একটি রিপোর্ট করা হয়েছিল। শেখ হাসিনার অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, রিপোর্টে যাদের নাম আছে, তাদের হাত অর্থমন্ত্রীর চেয়ে লম্বা। তারা অর্থমন্ত্রীর চেয়ে প্রভাবশালী। তাহলে তারা কারা হবেন? এই অ্যাকাউন্টও প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে খোলা হয়ে গেছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বিদ্যুতের দাম ১০ থেকে ১২ টাকা বৃদ্ধি করেছেন। এ দাম বৃদ্ধি করে প্রত্যেকের (জনগণের) পকেট কেটেছেন। এটাও কিন্তু অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে ? ব্যাংক ও রিজার্ভ লুট করা হয়েছে। এগুলোরও অ্যাকাউন্ট খোলা হচ্ছে। গুম, খুন এবং মিথ্যা মামলায় বেগম জিয়াকে যেভাবে নির্যাতন করা হচ্ছে সেটারও অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সকল ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছ মন্তব্য করে তিনি বলেন, তারা আবোল-তাবোল বকছেন। বলছেন, বিএনপির জনসমর্থন নেই। জনসমর্থন যদি না থাকে তাহলে সোহরাওয়ার্দীতে বিএনপিকে জনসভা করার অনুমতি দিতে ভয় পান কেন ? আওয়ামী লীগ যতই ষড়যন্ত্র করুক না কেনো, দেশের মানুষ ৫ জানুয়ারির মত প্রহসনের নির্বাচন আর হতে দেবে না।

এ বছর নির্বাচনের বছর উল্লেখ করে খন্দকার মোশাররফ বলেন, গণতান্ত্রিক দেশে নির্বাচনকে সুষ্ঠু, গ্রহণযোগ্য ও নিরপেক্ষ করতে গণতান্ত্রিক স্পেস প্রয়োজন। কিন্তু নির্বাচনের বছরে সে সুযোগ সরকার দিচ্ছে না। এছাড়া গণতান্ত্রিক স্পেসকে আওয়ামী লীগ তাদের বাক্সবন্দী করে ৫ জানুয়ারির মত আরেকটি প্রহসনের নির্বাচন করার ষড়যন্ত্র করছে ।

 নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে কারাগারে নিয়ে বিএনপিকে বেকায়দায় ফেলার গভীর ষড়যন্ত্র ছিল। তবে বিএনপির নেতা-কর্মীরা সরকারের পাতা ফাঁদে পা দেয়নি। গত ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে এখন পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ ও নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন চলছে। এতেই সরকার ভীত!

সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, বরকতউল্লহ বুলু, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু প্রমুখ বক্তব্যে রাখেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ