ঢাকা, মঙ্গলবার 10 April 2018, ২৭ চৈত্র ১৪২৪, ২২ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রোহিঙ্গা শিশুদের পরিদর্শনে তুরস্কের প্রতিনিধি দল

রোহিঙ্গা শিশুদের সঙ্গে তুরস্কের প্রতিনিধি দল

৯ এপ্রিল, আনাদোলু এজেন্সি : এতিম রোহিঙ্গা শিশুদের পরিদর্শন করেছে তুরস্কের আইনপ্রণেতা এবং দুর্যোগ ও জরুরি ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তাদের একটি প্রতিনিধি দল। রবিবার কক্সবাজারে শরণার্থী শিবিরে পরিদর্শনে গিয়ে তারা শিশুদের সঙ্গে কথা বলেন।

প্রতিনিধি দলের সদস্যরা শিশুদের সঙ্গে খেলেন তাদের কাছ থেকে এতিমখানার কার্যক্রম সম্পর্কে তত্য সংগ্রহ করেন। এছাড়া সেখানে তুরস্কভিত্তিক ইয়ারদিমেলি সাহায্য সংস্থার গড়ে তোলা শিক্ষা ভবন নিয়েও কথা বলেন।

কক্সবাজারে প্রায় ১২ বর্গ কিলোমিটার এলাকা নিয়ে ইয়ারদিমেলি দারুল হিকমে এডুকেশন অ্যান্ড স্যোশাল কমপ্লেক্স গড়ে তোলা হয়েছে। সেখানে একটি মসজিদ রয়েছে। স্কুল ভবনটিতে ২০টি শ্রেণিকক্ষ, এতিম শিশুদের জন্য পাঁচটি আবাসিক কক্ষ ও সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য বড় দুটি হল নির্মাণ করা হয়েছে।

ইয়ারদিমেলির বাংলাদেশ কো-অর্ডিনেটর মেহমেদ আকিফ সিটিল আনাদোলু এজেন্সিকে বলেন, রোহিঙ্গা এতিম শিশুদের পাশাপাশি বাংলাদেশি শিশুদেরও শিক্ষা দেওয়া হয়। এটাই এই এলাকায় সবচেয়ে বড় প্রতিষ্ঠান।

সিটির আরও বলেন, এখানে ৫ শতাধিক শিশু পড়াশোনা করলেও ৬৪ জন শিশু সেখানে আবাসিক হিসেবে থাকছে। তিনি বলেন, আমরা ২০০৮ সাল থেকে এখানে কার্যক্রম চালাচ্ছি। সংকট তব্র্র হওয়ার পরও আমরা বাংলাদেশি ও রোহিঙ্গা শিশুদের সহায়তা করে যাচ্ছি। এখানের নতুন করে ৪ শতাধিক গভীর নলকূপ, এতিমখানা ও বিদ্যালয় স্থাপন করা হয়েছে।

গত বছরের ২৫ আগস্ট রাখাইনের কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলার পর পূর্ব-পরিকল্পিত ও কাঠামোবদ্ধ সহিংসতা জোরালো করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। হত্যা-ধর্ষণসহ বিভিন্ন ধারার সহিংসতা ও নিপীড়ন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর প্রায় ৭ লাখ মানুষ।

তারা কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পালিয়ে আসা বাংলাদেশ-মিয়ানমার প্রত্যাবাসন চুক্তি সম্পন্ন হলেও তা কার্যকরের বিষয়টি এখনও প্রক্রিয়াধীন। কেবল গত বছর আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত ৭ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে এলেও এখন পর্যন্ত কেবল ৩৮৮ জনকে ফেরত নেওয়ার প্রক্রিয়া চালু রাখার কথা জানিয়েছে মিয়ানমার। এই অবস্থাতেই গ্রামগুলোতে বুলডোজার চালিয়ে আলামত নষ্ট, বিপুল সামরিকায়ন, উন্নয়ন প্রকল্প চলমান থাকা, প্রত্যাবাসন নিয়ে বৌদ্ধ জনগোষ্ঠীর হুমকির ধারাবাহিকতায় রাখাইনে বৌদ্ধদের মডেল গ্রাম গড়ে উঠছে বলে খবর পাওয়া যায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ