ঢাকা, বৃহস্পতিবার 12 April 2018, ২৯ চৈত্র ১৪২৪, ২৪ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বার্সাকে উড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিতে রোমা

স্পোর্টস ডেস্ক : শক্তিশালী বার্সেলোনার বিপক্ষে ইতিহাস গড়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমি-ফাইনালে উঠেছে এস রোমা। শেষ আটের ফিরতি লেগে মঙ্গলবার ৩-০ গোলে জিতেছে রোমা। গত সপ্তাহে কাম্প নউয়ে ৪-১ ব্যবধানে জিতেছিল বার্সেলোনা। দুই লেগ মিলিয়ে স্কোরাইন ৪-৪ হলেও অ্যাওয়ে গোলের সুবাদে এগিয়ে যাবে রোমা। একই সঙ্গে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমি-ফাইনালে উঠলো ১৯৮৩-৮৪ মৌসুমে ইউরোপিয়ান কাপের ফাইনাল খেলা দলটি। রোমের অলিম্পিক স্টেডিয়ামে ষষ্ঠ মিনিটে দানিয়েলে দে রস্সির রক্ষণের উপর দিয়ে বাড়ানো বল বার্সেলোনা ডি-বক্সে খুঁজে পায় এদিন জেকোকে।

প্রথম ছোঁয়ায় বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দ্বিতীয় স্পর্শে জালে ঠেলে দেন বসনিয়ার এই স্ট্রাইকার। ২৯তম মিনিটে ফাঁকায় ক্রস পেয়ে আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার ফেদেরিকো ফাজিওর নেওয়া হেড লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে বেঁচে যায় অতিথিরা। ৩৭তম মিনিটে চেক রিপাবলিকের এই ফরোয়ার্ডের হেড কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। ৫৮তম মিনিটে সফল স্পট কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন দে রস্সি। ডি-বক্সে জেকোকে ডিফেন্ডার জেরার্দ পিকে টেনে ফেলে দিলে পেনাল্টি পায় রোমা। হলুদ কার্ডও দেখেন স্প্যানিশ সেন্টার ব্যাক। ম্যাচের আগে লিওনেল মেসিকে আটকে রাখার ঘোষণা দিয়েছিলেন রোমা কোচ। মাঠে দেখা যায় তারই প্রতিফলন। মাঝে মধ্যে পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার বল পেলেও দারুণ ট্যাকলে কেড়ে নিচ্ছিল রোমার খেলোয়াড়েরা। ৬৩তম মিনিটে কলোরোভকে অহেতুক পিছন থেকে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন আর্জেন্টাইন তারকা। ৭০তম মিনিটে ইতালিয়ান মিডফিল্ডার দে রস্সির হেড অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। 

নয় মিনিট পর আলেস্সান্দ্রোর ফ্লোরেন্সির গোলমুখে বাড়ানো বিপজ্জনক ক্রসে কোলারভের প্রচেষ্টা ঠেকিয়ে দেন টের স্টেগেন। তবে শেষ পর্যন্ত দলকে বাঁচাতে পারেননি জার্মান গোলরক্ষক। ৮২তম মিনিটে দারুণ কোণাকুণি হেডে স্কোরলাইন ৩-০ করে ফেলেন গ্রিক ডিফেন্ডার কোস্তাস মানোলাস। দুই লেগ মিলিয়ে স্কোরলাইনে সমতা। কিন্তু পার্থক্য গড়ে দেয় কাম্প নউয়ে এদিন জেকোর করা গোলটি। কাম্প নউয়ে আত্মঘাতী গোল করে খলনায়ক হয়েছিলেন দে রস্সি ও মানোলাস। ঘরের মাঠে গোল করে তারাই এখন নায়ক। শেষ বাঁশি বাজার সঙ্গে সঙ্গে রোমার বেঞ্চের সব খেলোয়াড়-কোচরা মাঠে ছুটে যান উৎসবে যোগ দিতে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ