ঢাকা, সোমবার 16 April 2018, ৩ বৈশাখ ১৪২৫, ২৮ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কারাগারে খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ

স্টাফ রিপোর্টার: ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে দলের চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া ‘গুরুতর অসুস্থ’ বলে দাবি করেছে বিএনপি। গতকাল রোববার সকালে এক সাংবাদিক সম্মেলনে দলের সিনিয়র য্গ্মু মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এই দাবি করেন। তিনি বলেন, কারাবন্দি দলের চেয়ারপার্সন ও তিন বারের প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ। তিনি অসুস্থ হলেও এখন পর্যন্ত তাকে কোনো চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। বিএনপির পক্ষ থেকে আমি বেগম জিয়ার সুচিকিৎসার জন্য অতি দ্রুত তার নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি। সরকারকে বলব, তার চিকিৎসা কিসে ভালো হয়, সেটি দেশনেত্রীকে সিদ্ধান্ত নেয়ার সুযোগ দিন। বেগম জিয়ার ইচ্ছানুযায়ী তার চিকিৎসা নিশ্চিত করুন।

সরকারি মেডিকেল বোর্ডের প্রসঙ্গ টেনে রিজভী বলেন, মেডিকেল বোর্ড মামুলি প্রহসনের এক্সরে ও রক্ত পরীক্ষা করে ফিজিওথেরাপী সুপারিশ করেছে। অর্থাৎ তার স্বাস্থ্যগত যে পরীক্ষা, তার যে অসুস্থতা এটা নিয়ে যতটুকু মনোযোগ দেয়া দরকার, যতটুকু ডায়গোনেসিস করা দরকার সেটি সরকারি চিকিৎসকরা করেননি। একজন বয়স্ক ও দেশের জনপ্রিয় নেত্রী যিনি দীর্ঘদিন ধরে হাটু ও চোখের সমস্যার পাশাপাশি তাকে কারাগারে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ রাখায় আরো বেশিকিছু শারীরিক সমস্যা দেখা দিয়েছে। এমনিতেই রক্তচাপ, ডায়াবেটিকস আছে। তার দুই হাটু প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। সম্প্রতি তার চোখের অস্ত্রোপচার হয়েছে।

তিনি বলেন, দেশনেত্রীকে হাসপাতালে এক্সরে পরীক্ষার জন্য আনা হলেও তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকদের চিকিৎসা সেবার সুযোগ ও পরামর্শ নেয়া হয়নি। তাকে তিলে তিলে নিঃশেষ করার জন্যই ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে পরিকল্পিতভাবে সাজা দিয়ে দিয়ে কারাবন্দি করে এখন চিকিৎসার সুযোগও দেয়া হচ্ছে না। এটা জাতীয়তাবাদী শক্তিকে ধ্বংস করতে বহুমুখী চক্রান্তের অংশ। রিজভী জানান, গত শনিবার দলের চেয়ারপার্সনের আত্বীয় স্বজনরা খালেদা জিয়ার সাথে সাক্ষাৎ করেন।

বর্তমান সরকারই অশুভ শক্তি বলে মন্তব্য করেছেন রুহুল কবির রিজভী। পহেলা বৈশাখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে তিনি এই মন্তব্য করেন। রিজভী বলেন, ভোটারবিহীন অগণতান্ত্রিক শক্তি হচ্ছে সবচাইতে নিকৃষ্ট অশুভ শক্তি। এখন জনগন মনে করে দেশে সবচাইতে বড় অশুভ শক্তি বর্তমান ভোটারবিহীন মহাজোট সরকার যার নেতৃত্বে আছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জনগনের ভোটের অধিকার মানুষ দিন গুনছে এই অশুভ শক্তির পতনের। আন্তর্জাতিক স্বৈরাচারীরা কী শুভ শক্তি ? অনাগত দুঃচিন্তা, রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা, ঘনায়মান হতাশা ও বিরোধীদের গুম, খুন, অদৃশ্য করা, হাত-পায়ের নখ তুলে ফেলা, হাটুতে গুলি করে চিরদিনের জন্য পঙ্গু করা, খুলনা বিএনপি নেতাকে তুলে নিয়ে কক্সবাজারে অর্ধমৃত অবস্থায় ফেলে দেয়া ইত্যাদি পরিস্থিতিতে দেশের জনগোষ্ঠি প্রাণখুলে হাসতে পর্যন্ত ভুলে গেছে। এই পরিস্থিতি শুভ শক্তির পরিচয় বহন করে না। নবাবগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাককে উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় যোগ দিতে বাঁধা প্রদান ও তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান রিজভী। 

সংবাদ সম্মেলনে দলের ভাইস চেয়ারপার্সনের শওকত মাহমুদ, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আফজাল এইচ খান, কেন্দ্রীয় নেতা এবিএম মোশাররফ হোসেন, আবদুস সালাম আজাদ, মুনির হোসেন, আবদুল আউয়াল খান, সাইফুল ইসলাম পটু, আমিনুল ইসলাম প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ