ঢাকা, সোমবার 16 April 2018, ৩ বৈশাখ ১৪২৫, ২৮ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কেরানীগঞ্জে দুর্বৃত্তের আগুনে ৩০টি গরু দগ্ধ ॥ ক্ষতির পরিমাণ ৫০ লাখ টাকা

কেরানীগঞ্জ সংবাদদাতা : ঢাকার কেরানীগঞ্জে পূর্ব শত্রুতার জেরধরে বাহরাইন প্রবাসী এক ব্যাক্তির গরুর খামারে আগুন দিয়ে ৩০টি গরু পুড়িয়ে মেরেছে দুর্বৃত্তরা। ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটেছে সম্প্রতি দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার বাস্তা ইউনিয়নের ধীতপুর গ্রামে। এই ঘটনায় খামার মালিকের প্রায় ৫০ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। 

বাহরাইন প্রবাসী গরুর খামারের মালিক মোঃ আব্দুস ছামাদ বলেন, আমি দীর্ঘ ৩২ বছর বছর যাবৎ বাহরাইনে থাকি। 

গত মাসের ১২ তারিখে আমি দেশে এসেছি। আজ ভোর বেলা সন্ত্রাসীরা আমার গরুর খামারে পেট্রোল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এসময় গরুর ডাক চিৎকারে আমি ঘরের বাহিরে আসতে চাইলেও আসতে পারিনি। দুর্বৃত্তরা আমার ঘরের  দরজাটির ছিটকিনি  বাহির দিক থেকে লাগিয়ে দেয় । পরে আমাদের সবার আর্ত-চিৎকারে বাড়ির আশেপাশের লোকজন দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে দরজাটি খুলে দেয়। আমরা সবাই ঘরের বাহিরে আসার সাথে সাথেই খামারের ৩০টি গরু পুড়ে মারা যায়।এসময় এই খামারের পাশে আমার আরো ৩টি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ওই ঘরগুলোতে রাখা আমার ৩৫মন পিঁয়াজও পুড়ে গেছে । এতে আমার প্রায় ৫০লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে। তিনি আরো বলেন, আমার গ্রামের পাশের এক সিমেন্ট ব্যবসায়ীর কাছ থেকে আমি সিমেন্ট ও বালু ক্রয় না করার কারনেই তিনি কয়েক দিন পুর্বে আমার বাড়িতে এসে আমাকে ও আমার স্ত্রীকে হুমকি দিয়ে যায়। আমার ধারনা ওই ব্যক্তির নেতৃত্বেই 

আমার গরুর খামারে আগুন দিয়ে গরুগুলোকে পুড়িয়ে মারা হয়েছে। দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার পুলিশ উপ-পরিদর্শক মোঃ ফুল মিয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে তিনি বলেন, ঘটনাটি খুব মর্মান্তিক। তদন্ত সাপেক্ষে এই ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

বাহরাইন প্রবাসী আব্দুস ছামাদের স্ত্রী রাবেয়া বেগম বলেন, আমার স্বামী দীর্ঘদিন যাবত প্রবাসে থাকায় আমি এই খামারটি তিলতিল করে গড়ে তুলেছি এবং সর্বক্ষনিকভাবে আমি খামারটি দেখাশুনা করি। কিন্তু পূর্বশত্রুতার জেরধরে সন্ত্রাসীরা আমাদের গরুর খামারে পেট্রোল দিয়ে আগুন ধরিয়ে ৩০টি গরুকে পুড়িয়ে নির্মমভাতে মেরে ফেলছে । এই ঘটনায় আমরা এখন নিঃস্ব হয়ে গেছি। এদিকে বাস্তা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জেড এ জিন্নাহ এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ