ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 July 2018, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫, ৫ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কোটা সংস্কার আন্দোলন: দুদিনের মধ্যে মামলা প্রত্যাহার দাবি 

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন চলাকালে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে যে মামলাগুলো করা হয়েছিল তা আগামী দুদিনের মধ্যে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

দুই দিনের মধ্যে এই দাবি পূরণ না হলে আন্দোলনে নামবেন বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির নেতারা।সোমবার সকাল ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে একটি লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান সংগঠনটির সহ-আহ্বায়ক নুরুল হক। 

বক্তব্যে কোটা সংস্কার আন্দোলন চলাকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানের বাসায় হামলার ঘটনাসহ চারটি মামলা করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ। মামলাগুলো প্রত্যাহারের দাবি জানায় সংগঠনটি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নুরুল হক বলেন, একটি কুচক্রী মহল আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। আন্দোলনকারী ও নেতাদের হযরানি করলে ছাত্র সমাজ দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে।

আন্দোলনকারীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হাসপাতালগুলোকে নির্দেশনা দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান নূর।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খান বলেন, 'ইত্তেফাকে আমাকে জামাত-শিবির পরিচয় দিয়ে যে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। সেখানে বলা হয়েছে, ২০১২ সালে সূর্যসেন হলের ৫০৫ নম্বর রুমে থাকতাম। কিন্তু আমি ২০১৩ সালে সেখানে থাকা শুরু করি। প্রতিবেদনে আমার বাবার নামও ভুল লেখা হয়েছে। পুরো প্রতিবেদনই মিথ্যা তথ্য দিয়ে ভরা।'

সংগঠনের নেতারা বলেন, 'আজ বিকাল ৫টার মধ্যে ইত্তেফাক পত্রিকা যদি প্রতিবেদন প্রত্যাহার না করে, কাল থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও বিশ্ববিদ্যালয়ে এই পত্রিকা বর্জন করা হবে। তারা বলেন, 'উপাচার্য স্যারের বাসায় যে হামলা হয়েছে, আমরাও চাই তার বিচার হোক। এ জন্য আমরা সহায়তা করতে প্রস্তুত।'

চাকরিতে কোটা সংস্কার আন্দোলন গতি পেলে গত ১০ এপ্রিল জাতীয় সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাকরিতে আর কোটা ব্যবস্থা না রাখার ঘোষণা দেন। পরদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের রাজু ভাস্কর্যের সামনে সংবাদ সম্মেলন করে আন্দোলন প্রত্যাহার করে নেন শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনের সময় ঢাবি উপচার্যে্যর বাসভবনে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। এই পরিপ্রেক্ষিতে রমনা থানায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও পুলিশ চারটি মামলা করে। 

ওসব মামলা প্রত্যাহার ও শিক্ষার্থীদের হয়রানি না করার দাবিতে আজ আন্দোলনকারীরা সংবাদ সম্মেলন করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ