ঢাকা, মঙ্গলবার 17 April 2018, ৪ বৈশাখ ১৪২৫, ২৯ রজব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

দেশের কল্যাণে সবাইকে কাঁধে-কাঁধ মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যেতে হবে ------সিআইপি আলহাজ¦ মো: মজিবর রহমান

বর্ণাঢ্য আয়োজনে বিআরবি গ্রুপের উদ্যোগে বাংলা নববর্ষ উদযাপন

বিআরবি গ্রুপের চেয়ারম্যান দেশ বরেণ্য শিল্পপতি বার বার নির্বাচিত (কর্মাশিয়াল ইমপর্টেন্ট পারসন) সিআইপি আলহাজ¦ মো: মজিবর রহমান বলেছেন, শুধু নিজেকে নিয়ে ভাবলেই চলবে না, দেশকে নিয়েও ভাবতে হবে। নিজেদের ভবিষ্যৎ গড়ার পাশাপাশি দেশের ভবিষ্যৎ নিয়েও আমাদেরকে চিন্তা করতে হবে। দেশের কল্যাণে নিজেদেরকে আত্মনিয়োগ করতে হবে। দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ভুলে গিয়ে দল-মত নির্বিশেষে দেশের কল্যাণে সবাইকে কাঁধে-কাঁধ মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যেতে হবে। আর আমরা যদি এ কাজটি করতে পারি তাহলে বাংলাদেশ আরো সামনের দিকে এগিয়ে যাবে। মজিবর রহমান বলেন, শুধু নিজেদের সুন্তুষ্টির জন্য কাজ করলে চলবে না; মহান রাব্বুল আলামিনের সুন্তুষ্টি অজর্নের জন্যও আমাদের কাজ করে যেতে হবে। তিনি বলেন, কুষ্টিয়া জেলায় ব্যাপক কর্ম সংস্থান সৃষ্টির জন্য বিআরবি গ্রুপ কাজ করে যাচ্ছে। কুষ্টিয়ার মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করার জন্য বিআরবি গ্রুপ মেডিকেল কলেজসহ ৫০০ বেডের হাসপাতাল নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।  

২০২০ সালে এই হাসপাতাল চালু হলে এখানে প্রায় ৩ হাজার লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। নিজেদের বিগত দিনের ভুল-ক্রটি শুধরে নিয়ে কাল থেকে নব উদ্যম নিয়ে কাজে আত্মনিয়োগ করার আহবান জানিয়ে তিনি আগামীতে বিআরবি গ্রুপ এ অঞ্চলের মানুষের জন্য আরো কর্মসংস্থান সৃষ্টির ঘোষণা দেন। বিআরবি গ্রুপের উদ্যোগে বাংলা নববর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। প্রতি বছরের মত এ বছরও নানা আনুষ্ঠানিকতা,উৎসব আর উদ্দীপনায় দেশ সেরা কেবল প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান বিআরবি গ্রুপ বাংলা নববর্ষ-১৪২৫ উদযাপন করেছে। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে ১৪ এপ্রিল শনিবার বেলা পৌনে ১০ টায় প্রায় ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে সদ্য নির্মিত কারখানার বিশাল অডিটোরিয়ামে মিলাদ মাহফিল ও পাওনাদাবির চেক প্রদান এবং আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে নানা আয়োজন করা হয়। বেলুন আর রঙ বেরঙের পতাকা দিয়ে বর্ণিল সাজে সাজানো হয় কারখানা চত্বর।

  বেলুন দিয়ে নির্মাণ করা হয় সুদৃশ্য গেট। আর গোটা অডিটোরিয়াম সাজানো হয় গ্রামীণ বাংলার চিরাচরিত একতারা, কুলা, কৃষকের মাথার মাথালসহ বাংলা নববর্ষের আবহে। রং আর তুলির আঁচড়ে এক অন্য রকম পরিবেশ তৈরি করা হয় অডিটোরিয়াম জুড়ে।  অনুষ্ঠানকে ঘিরে সকাল থেকে বিআরবি গ্রুপের নারী-পুরুষ নির্বিশেষে কয়েক হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী সুশৃঙ্খলাভাবে অডিটোরিয়ামের নির্ধারিত আসন গ্রহণ করেন। 

অনুষ্ঠান শুরুর আগেই কানায়-কানায় পরিপূর্ণ হয়ে যায় বিশাল অডিটোরিয়াম। দুইটি পর্বে বিভক্ত করা হয় আনুষ্ঠানটি। বিআরবি গ্রুপের সব অনুষ্ঠান শুরু হয় দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের মাধ্যমে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। প্রথম পর্বে ছিল শুভ নববর্ষ-১৪২৫ উপলক্ষে মিলাদ মাহফিল। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ