ঢাকা, বুধবার 18 April 2018, ৫ বৈশাখ ১৪২৫, ১ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজিবের মৃত্যুতে শিবিরের শোক

দুই বাস চাপায় হাত হারানো রাজিব হোসেনের ইন্তিকালে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।
গতকাল মঙ্গলবার দেয়া যৌথ শোকবার্তায় বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ও সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, গত ৩ এপ্রিল বিআরটিসি বাসে করে গন্তব্যে যাওয়ার পথে দুই বাসের বেপরোয়া রেষারেষিতে পড়ে একটি হাত বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় সরকারি তিতুমীর কলেজের মেধাবী ছাত্র রাজিব হোসেনের। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল তার মৃত্যু হয় (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার এই অকাল মৃত্যুতে সারাদেশে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। রাজধানীতে এরকম বেপরোয়া গাড়ি চালনায় হতাহতের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় আতঙ্কিত সাধারণ মানুষ। বিশৃঙ্খল যান চলাচল ব্যবস্থা ও দক্ষ চালকের অভাবে প্রতিনিয়ত এ ধরনের দুর্ঘটনায় বহু প্রাণ ঝরে যাচ্ছে। যা এক প্রকার হত্যাকান্ড। বাস চালকরা যেন মানুষের জীবন নিয়ে প্রতিযোগিতায় মেতে উঠেছে। যার জ্বলন্ত প্রমাণ কলেজছাত্র রাজীব হোসাইনের মৃত্যু, গৃহবধূ আয়েশা খাতুনের মেরুদন্ড ভাঙা ও বেসরকারি চাকরিজীবী রুনা আক্তারের পা থেঁতলে যাওয়াসহ বিভিন্ন দুর্ঘটনা। যা কোন ভাবেই কাম্য নয়। রাজিব ছিল এতিম এবং তার কিশোর দুই ভাই ছিল তারই উপর নির্ভরশীল যারা এখন অসহায় হয়ে পড়েছে। এক্ষেত্রে হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী নিহত রাজিবের পরিবারকে ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ প্রদানে সরকারকে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। রাজীব হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিতে হবে। সব সড়কে দুর্ঘটনায় মৃত্যুদন্ডের বিধান রেখে আইন করতে হবে। রাস্তা ঘাটে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। একই সাথে ক্যাম্পাসেও শিক্ষার পরিবেশ রক্ষায় সরকারকে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। একজন মেধাবী ছাত্রের এমন অকালে ঝরে যাওয়া অপূরণীয় ক্ষতি। আমরা তার এ মৃত্যুতে গভীর ভাবে শোকাহত।
আমরা মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা করছি ও তার শোক-সন্তপ্ত পরিবার-পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ