ঢাকা, বুধবার 18 April 2018, ৫ বৈশাখ ১৪২৫, ১ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ইলিয়াছ আলীকে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন

সিলেট ব্যুরো : বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম. ইলিয়াস আলীকে সুস্থ ও অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়ার দাবিতে সিলেটে মানববন্ধন করেছে স্বেচ্ছাসেবকদল ও ছাত্রদল। ইয়িলাস আলী নিখোঁজের ছয় বছর পূর্ণ উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।
এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দিলদার হোসেন সেলিম বলেন, ইলিয়াস আলীর মত দেশপ্রেমিক নেতাকে নিয়ে বৃহত্তর সিলেটের মানুষ সমৃদ্ধির স্বপ্ন জাল বুনছিল। সময়ের সাহসী এই নেতাকে গুম করে সিলেটবাসীর হৃদয়ে কুঠারাঘাত করা হয়েছে। সিলেট মহানগর স্বেচ্ছাসেবকদলের আহবায়ক কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীমের সভাপতিত্বে এবং জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ খান জামালের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘আওয়ামীলীগ সরকারের অন্যায়, অত্যাচার, জুলুম, নির্যাতন এবং দেশের স্বার্থ বিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলায় ইলিয়াস আলীকে গুম করা হয়েছে। বক্তারা আরও বলেন, সিলেটের আপামর জনসাধারণের হৃদয়ে ইলিয়াস আলীর নাম লেখা রয়েছে। তারা অবিলম্বে জননেতা ইলিয়াস আলীকে সুস্থ ও অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানান। অন্যথায় সরকার ও আওয়ামী লীগকে এর জন্য চরম খেসারত দিতে হবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।’
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি সালেহ আহমদ খসরু, মহানগর বিএনপির সহ-সভাপিত কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, সহ-সভাপতি সামিয়া বেগম চৌধুরী, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, লুৎফুল হক খোকন, জেলা বিএনপির সহ সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুর চৌধুরী ফয়সল, সাবেক ছাত্রনেতা নজিবুর রহমান নজিব, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ময়নুল হক, জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট ফখরুল হক, জেলা বিএনপির যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক আরিফ ইকবাল নেহাল চেয়ারম্যান, মহানগর বিএনপির মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক লুৎফুর রহমান চৌধুরী, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শাকিল মুর্শেদ প্রমুখ। মানববন্ধনে বিএনপি এবং দলের সহযোগী অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
নগরবাসীকে ভাবিয়ে তুলেছে
সিলেটে সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিক কামরুল ইসলামের ওপর ছিনতাইকারীদের হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর সুবিদবাজাস্থ সিলেট প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, একজন সাংবাদিকের উপর ছিনতাইকারীদের হামলার ঘটনা সাধারণ নগরবাসীকে ভাবিয়ে তুলেছে। যারা মানুষের জন্য কাজ করেন, সমাজের অপরাধ চিত্র দূর করতে কাজ করেন তাদের জীবনের নিরাপত্তা দেয়া আইনশৃংখলা বাহিনীর কাজ হলেও সাংবাদিক কামরুলের উপর হামলার ঘটনার কয়েক দিন অতিবাহিত হলেও হামলাকারী সেলিম ওরফে লন্ডনী সেলিম ও তার সহযোগীদের  গ্রেপ্তার করা হচ্ছে না। মানববন্ধনে সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে আসামীদের  গ্রেফতার করতে ৭২ ঘন্টার আলটিমেটাম দেয়া হয়। তারা বলছেন এই সময়ের মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেফতার করা না হলে সিলেটের সাংবাদিক সমাজ কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবেন।
মানববন্ধনে একাত্মতা প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। কামরুলের উপর হামলাকারী ছিনতাইকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করার আহবান জানিয়ে সিটি মেয়র বলেন, ছিনতাইকারীদের ভয়ে নগরীর সাধারণ মানুষ যখন আতঙ্কিত সেখানে একজন সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনা আইনশৃংখলা অবস্থা যে দুর্বল হয়ে পড়েছে তার প্রমান।
সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও সিলেট স্টেশন ক্লাবের সভাপতি বিশিষ্ট আইনজীবী এমাদ উল্লাহ শহিদুল ইসলাম বলেন, আইনশৃংখলা বাহিনীকে সরকার কোটি কোটি টাকা দিয়ে লালন পালন করছে। বিশেষ করে এসএমপিকে বাড়ি-গাড়ীসহ যাবতীয় সুবিধা দেয়া হচ্ছে। এসএমপি কমিশনারসহ এখানে রয়েছেন বড় বড় কর্তাব্যক্তি। তাদের দায়িত্ব হচ্ছে নগরবাসীকে নিরাপত্তা দেয়া। কিন্তু সাম্প্রতিককালে আমরা লক্ষ করছি যে তারা আইনশৃংখলা পরিস্থিতি রক্ষায় পুলিশ প্রশাসন চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছেন। তিনি সাংবাদিক কামরুলের ওপর হামলাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানান।
মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সমরেন্দ্র বিশ্বাস সমর, ব্লাস্টের কো-অর্ডিনেটর এডভোকেট ইরফানুজ্জামান চৌধুরী, দৈনিক জালালাবাদের নির্বাহী সম্পাদক আবদুল কাদের তাপাদার, দৈনিক সংগ্রামের ব্যুরো প্রধান কবির আহমদ প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ