ঢাকা, বুধবার 18 April 2018, ৫ বৈশাখ ১৪২৫, ১ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের আলোচনা সভা

খুলনা অফিস : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেত্রী ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি বলেন, মুজিবনগর দিবস বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের এক ঐতিহাসিক মাইলফলক। ২৩ বছর পাকিস্থানের দুঃশাষনের বিরুদ্ধে জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান ধাপে ধাপে নেতৃত্ব দিয়ে সারে সাত কোটি বাঙালিকে স্বাধীনতার মন্ত্রে দিক্ষিত করেছিলেন। ১৯৭০ এর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সংখ্যাগরিষ্ঠভাবে নির্বাচিত হলেও পাকিস্তান বঙ্গবন্ধুর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেনি। বিধায় ১৯৭১ এর মার্চ মাসের শুরুতে বাঙালীর মুক্তির মহানায়ক বঙ্গবন্ধু পাকিস্তান সরকারের বিরুদ্ধে অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দেন। ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষন ও ২৬শে মার্চ বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতা ঘোষনার মধ্যদিয়ে বাঙালী জাতি স্বশত্র মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে। বঙ্গবন্ধুকে রাস্ট্রপতি, সৈয়দ নজরুল ইসলামকে অস্থায়ী রাস্ট্রপতি, তাজউদ্দিন আহমেদকে প্রধানমন্ত্রী করে ১০ই এপ্রিল আওয়ামী লীগের জন প্রতিনিধিদের দ্বারা মেহেরপুরের বৈদ্যনাথ তলায় মুজিবনগর সরকার গঠন করা হয়। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের প্রথম সরকার তথা মুজিবনগর সরকার ১৭ই এপ্রিল শপথ গ্রহন করেন। এই সরকারের অধীনে ৯ মাসের মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লক্ষ শহীদ ও দুই লক্ষ মা-বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা ও বিজয় অর্জন করি। কিন্তু ৭৫ সালের জাতির জনকের স্বপরিবারকে হত্যার পরে স্বাধীনতা বিরোধীদের হাতে ক্ষমতায় যাওয়ার পরে বাঙালীর গৌরবের ইতিহাস এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র করেছিল। কিন্তু ইতিহাস কখনো মুছে ফেলা যায়না। বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষন ইতিমধ্য জাতিষঙ্ঘের স্বীকৃতি অর্জন করেছে, যা সারা পৃথিবীর মুক্তিকামী মানুষের আলোকবর্তিকা হিসাবে গ্রহন করেছে। এই ঐতিহাসিক দিবসে আমাদের শপথ নিতে হবে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্র গড়ে তুলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলবো। এজন্য আগামী ১৫ই মের সিটি নির্বাচনে আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেককে মেয়ব নির্বাচিত করে এবং জাতিয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে হবে।
গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০টায় দলীয় কার্যালয়ে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশীদ এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও দলীয় মেয়র প্রার্থী আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা এস এম কামাল হোসেন। অন্যান্যদের মধ্য বক্তব্য রাখেন আওয়মী লীগ নেতা শেখ হায়দার আলী, মল্লিক আবিদ হোসেন কবির, সিদ্দিকুর রহমান, এমডিএ বাবুল রানা, নূর ইসলাম বন্দ, কামরুজ্জামান জামাল, অধ্যাপক আলমগীর কবির, এডভোকেট অলোকা নন্দা দাস, মকবুল হোসেন মিন্টু, এডভোকেট ফরিদ আহমেদ, মো. মুন্সি জোবায়ের আহমেদ খান জবা, হাফেজ মো. শামীম, মোজাম্মেল হক হাওলাদার, এডভোকেট সাইফুল ইসলাম, তসলিম আহমেদ আশা, অধ্যাপিকা হোসনেআরা রুনু, মোল্লা আবুল কাশেম, শেখ মোশাররফ হোসেন, শফিকুর রহমান পলাশ, শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন, মুন্সি নাহিদুজ্জামান, চয়ন বালা প্রমুখ। সভার শুরুতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতিয় চার নেতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরনে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। সভা পরিচালনা করেন, মহানগর আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ ও উপ-প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক মফিদুল ইসলাম টুটুল।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ