ঢাকা, বুধবার 18 April 2018, ৫ বৈশাখ ১৪২৫, ১ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ফটিকছড়িতে জৌলুস নেই হালখাতা অনুষ্ঠানের

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, ফটিকছড়ি: হালখাতা বছরের শেষে এবং নতুন বছরের শুরুতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের হিসাব নিকাশ আনুষ্ঠানিকভাবে হালনাগাদ করার প্রক্রিয়া। বছরের শেষে ব্যবসায়ীরা তাদের দেনা-পাওনার হিসাব সমন্বয় করে বছরে প্রথম দিন হিসাবের নতুন খাতা খোলেন। সেজন্য পুরানো বকেয়া আদায়ের করে নেন বছরের শেষে। এজন্য বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আয়োজন করেন হালখাতা অনুষ্ঠানের। প্রথমে ক্রেতাদের বিনীতভাবে পাওনা শোধ করার কথা স্মরণ করিয়ে দাওয়াত দেওয়া হয় শুভ হালখাতা কার্ড এর মাধ্যমে। এ উপলক্ষে ব্যবসায়িরা তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফুল,রং বেরং কাগজ,দিয়ে নানা ভাবে সজ্জিত করেন। আয়োজিত অনুষ্ঠানের নির্দিষ্ট দিনে ক্রেতাদের মিষ্টিমুখ করান। এছাড়া নানা রকম খাবারের আয়োজনও করে। আমাদের দেশে বাংলা নববর্ষে হালখাতার প্রধান্য পেলেও বর্তমান সময়ে অনেকে ব্যবসায়ি ইংরেজি নববর্ষে হালখাতা অনুষ্ঠান সেরে ফেলেন। বাঙ্গালীর সমাজ সংস্কৃতির ঐতিহ্যেও এ হালখাতা একসময় ফটিকছড়িতেও ব্যপক প্রচলন ছিল। বর্তমান হালখাতা উৎসবে তেমন একটা জৌলুস নেই। শুধুমাত্র কিছু আড়তদার ব্যবসায়িদের হালখাতা অনুষ্ঠানের আয়োজন চোখে পড়ে। মাছের আড়তদার মোহাম্মদ গোলাফ বলেন,প্রতি বছর নতুন বছরের শুরুতে হালখাতা অনুষ্ঠানের আয়োজন করি। পুরানো বছরের বকেয়া আদায়ের মাধ্যমে নতুন বছরের হিসাব শুরু করি। অনুষ্ঠানের দিন সাধ্যনুযায়ি ক্রেতাদের জন্য খাবার দাবারের আয়োজন ও পুরস্কার বিতরণ করি। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ