ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 April 2018, ৬ বৈশাখ ১৪২৫, ২ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

খালেদা জিয়া চিকিৎসাধীন থাকাকালেও দেশকে অশান্ত করার ষড়যন্ত্র করছেন

খুলনা অফিস : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, দুর্নীতি আর নৈতিক পরাজয়ের কারণে বিএনপি মেয়র প্রার্থী পরিবর্তন করেছে। তারেক রহমান হাওয়া ভবনে বসে এতিমের টাকাসহ হাজার হাজার কোটি টাকা অবৈধভাবে আয় করে লন্ডনে পাচার করেছে।  সেই পাচারের টাকায় এখন সেখানে বসে বাংলাদেশকে অশান্ত করতে ষড়যন্ত্র করছে। তিনি আরো বলেন, এতিমের টাকা আত্মসাৎ মামলায় তারেক রহমান সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী ও খালেদা জিয়া কয়েদি হিসেবে জেলে আছেন। খালেদা জিয়া অসুস্থতার নামে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন থাকাকালে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে দেখা করে দেশকে অশান্ত করতে ষড়যন্ত্র করছে। তার এই ষড়যন্ত্র থেকে বাংলার মানুষকে রক্ষা করতে সকলকে সর্তক থাকতে হবে। তিনি আরো বলেন জামায়াত ৭১এ নারীদেরকে গনিমাতের মাল বলে চালিয়েছে। তেমনি এখনো তারা বিভিন্ন ভাবে আমাদের মা-বোনদের বিভিন্ন ভাবে হেনস্থ করছে। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে বিকৃত করার জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করছে। এসকল ষড়যন্ত্রের দিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে তিনি নেতা কর্মীদের প্রতি নির্দেশ দেন।
গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় গল্লামারী স্মৃতিসৌধে খুলনা মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কেসিসি নির্বাচনে প্রচারনায় মন্ত্রী ও এমপিরা অংশ নিতে পারবেনা আচরনবিধি থাকায় নগরীর সিমান্ত এলাকায় এ প্রতিনিধি সভা করা হয়। প্রতিনিধি সভার কথা বললেও মূলত এটি ছিল কেসিসির আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেকের নির্বাচনী শো ডাউন।  
খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ-এর সভাপতিত্বে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান এমপি, বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম ও আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, নির্বাহী সদস্য বেগম মন্নুজান সুফিয়ান এমপি ও এস এম কামাল হোসেন, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, কেন্দ্রিয় নেতা এডভোকেট আমিরুল আলম মিলন, ইসাহাক আলী খান পান্না, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলের সমন্বয়ক মিজানুর রহমান মিজান এমপি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগ নেতা কাজী এনায়েত হোসেন, এফ এম মাকসুদুর রহমান, নুর ইসলাম বন্দ, সরফুদ্দিন বিশ্বাস বাচ্চু, আবুল কালাম আজাদ কামাল, কামরুজ্জামান জামাল, এডভোকেট মো. সাইফুল ইসলাম, সিদ্দিকুর রহমান বুলু বিশ্বাস, শেখ মো. আবিদ হোসেন, অধ্যাপক আলমগীর কবির, অধ্যক্ষ দেলোয়ারা বেগম, অধ্যাপক আশরাফুজ্জামান বাবুল, হাজী মো. নুরুজ্জামান, অধ্যাপক হোসনে আরা রুনু, বিএম জাফর, রনজিত কুমার ঘোষ, এডভোকেট সরদার আনিসুর রহমান পপলু, শেখ মোশাররফ হোসেন, মোতালেব হোসেন, এডভোকেট সেলিনা আক্তার পিয়া, এডভোকেট রাবেয়া ওয়ালী করবী, শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন, পারভেজ হাওলাদার, এস এম আসাদুজ্জামান রাসেল, মো. ইমরান হোসেন। সভা পরিচালনা করেন, খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক এডভোকেট ফরিদ আহমেদ, মহানগর আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক মো. মুন্সি মাহবুব আলম সোহাগ, মহানগর আওয়ামী লীগ উপ-দপ্তর সম্পাদক হাফেজ মো. শামীম, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক মো. মফিদুল ইসলাম টুটুল, সাবেক ছাত্র নেতা অসিত বরন বিশ্বাস প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ