ঢাকা, বৃহস্পতিবার 19 April 2018, ৬ বৈশাখ ১৪২৫, ২ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নবাবগঞ্জে বর্ষার মওসুমকে সামনে রেখে নৌকা মেরামতের কাজ চলছে

নবাবগঞ্জ(দিনাজপুর) এম রুহুল আমিন প্রধান: উপজেলার করতোয়া নদীসহ  প্রতি বছর চৈত্র-বৈশাখ মাসে দেশের ছোটখাট নদীনালাগুলো শুকিয়ে চৌচির ও খাঁ খাঁ করে। শুক নদীর ধুধু প্রান্তরে ছড়িয়ে ছিঁটিড়ে থাকে মাছ ধরা এবং পারাপারের কাজে ব্যবহৃত ছোট বড় অসংখ্যা নৌকা। খেয়া পারাপারকারী মাঝি মালল্লারা আগাম বর্ষার আশংকা করে পুরনো নৌকা মেরামতের কাজে হাত দিয়েছেন। চলতি বছর জেলা পরিষদের অধিনে নিলামের মাধ্যমে উপজেলার করতোয় নদীর জাতের ঘাট নিজেদের দখলে নেওয়ার পর ওই সব ঘাটের দায়িত্বপ্রাপ্ত মাঝিরা (ঘাটিয়াল) নদীর ঘাটে নৌকা তৈরি এবং পুরনো নৌকা মেরামতের জন্য ব্যস্ত সময় পার করছেন। আসন্ন ভরা বর্ষায় নৌকার মাধ্যমে নদীর দুই পারের মানুষের সৌহার্দ্য ও সম্প্রীতির সেতুবন্ধনকে সুদৃঢ় করার প্রত্যায়ে রাত দিন চলছে মাঝিদের নৌকা মেরামতের কাজ। প্রকাশ থাকে, নবাবগঞ্জ উপজেলার পাশ দিয়ে বয়ে গেছে ছোট বড় বেশ কয়েকটি নদী। তার মধ্যে উপজেলার পূর্ব দিকে ৭নং দাউদপুর ইউনিয়নের দক্ষিন বোয়াল মারী( জাতেরপাড়া) এবং পিরগঞ্জ উপজেলার পশ্চিমে টুকুরিয়া ইউনিয়নের ঘোনা বিছনা গ্রামের পার্শ দিয়ে বয়ে গেছে করতোয়া নদী আর বর্ষাকালে ওই নদী অঞ্চলের লোকজনকে নৌকার মাধ্যমে নদী পার হয়ে উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চলে  এসে প্রয়োজন সারতে হয়। ইতিপুর্বে উপজেলার করতোয়ার ঘাট এলাকায় কাঁচদহতে ড. ওয়াজেদ মিয়া সেতু নির্মাণ করার ফলে ওই অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থার অনেকটাই উন্নতি হয়েছে। এছাড়াও করতোয়া নদীর উপর জাতের ঘাটের ব্রিজের অভাবে বর্ষাকালে এখনো ওই অঞ্চলে নৌকার রাজত্ব বহাল থাকে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ