ঢাকা, শুক্রবার 20 April 2018, ৭ বৈশাখ ১৪২৫, ৩ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

মিরপুরে ম্যাচ জিতে শিরোপার সুবাস পাচ্ছে বিসিবি নর্থ জোন

 

স্পোর্টস রিপোর্টার : চার দিনের ম্যাচে একদিন আগেই জয় পেয়েছে বিসিবি নর্থ জোন। গতকাল বিসিবি নর্থ জোন ইনিংস ও ২৮ রানে হারায় ইসলামী ব্যাংক ইষ্ট জোনকে। আর এই জয়ে টানা শিরোপা জয়ের সুবাস পাচ্ছে বিসিবি নর্থ জোন। গতকাল মিরপুরে এক দিনে ২০ উইকেট হারায় ইসলামী ব্যাংক ইষ্ট জোন। বিসিবি নর্থ জোনের বিপক্ষে তাদের প্রথম ইনিংস গুটিয়ে যায় ৬৩.২ ওভারে ২১৭ রানে।

 দ্বিতীয় ইনিংসে আরও বাজে পারফরম্যান্স দলটির। দশ উইকেট পেতে বিসিবি নর্থ জোনকে মাত্র ৩৮.১ ওভার বোলিং করতে হয়। দলটি অলআউট হয় ১৭০ রানে। তাতেই এক ইনিংস ও ২৮ রানে জয় পায় বিসিএলের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আর এ জয়ে শিরোপার পথে এক ধাপ এগিয়ে গেল বিসিবির দলটি। এই ম্যাচে ১৯ পয়েন্ট পেয়েছে জহুরুল ইসলাম অমির দল। পাঁচ রাউন্ড  শেষে তাদের দলের পয়েন্ট ৫৮। 

এখন ধরা ছোঁয়ার বাইরে তারা। শেষ ম্যাচে ড্র করলেই টানা দ্বিতীয় শিরোপা পাবে বিসিবি নর্থ জোন। পাঁচ ম্যাচে হারা হারেনি একটিও। দুটি জয় বাদে বাকি তিনটি ড্র করেছে দলটি। দলের জয়ের নায়ক পেসার ইয়াসিন আরাফাত মিশু। ডানহাতি এ  পেসার প্রথম ইনিংসে ৪টি এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেট পেয়েছেন। ৭ উইকেট নিয়ে ইসলামী ব্যাংকের ইনিংস একাই ধসিয়েছেন ডানহাতি পেসার।

 আরেক পেসার শরীফুল ইসলামও  পেয়েছেন ৭ উইকেট। ইয়াসিনের মতো প্রথম ইনিংসে বাঁহাতি পেসার ৪টি এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেট পেয়েছেন। দলের জয়ে বাকিরাও রেখেছেন অবদান। দ্বিতীয় দিনের শেষটা ভালো করেছিলেন ইসলামী ব্যাংকের দুই ওপেনার তাসামুল ও লিটন। বিনা উইকেটে ১১০ রানে তারা ব্যাটিং শুরু করেন। গতকাল তৃতীয় দিনের শুরুটাও ভালো করেন তারা। তাসামুল তুলে নেন ফিফটি, আর লিটন নিজের ইনিংস বড় করতে থাকেন। কিন্তু এ জুটি ভাঙার পর মধাহ্ন বিরতির আগে আরও ৭ উইকেট হারায় তারা। তাসামুল ৫৬, লিটন ৬৯, মুমিনুল ২১, আফিফ ৬, আশরাফুল ১১, অলোক ২ ও জাকের আলী ৫ রানে আউট হন। বিরতির পর ২০ মিনিটেই  শেষ ২ উইকেট হারায় তারা। প্রথম ইনিংস গুটিয়ে যায় মাত্র ২১৭ রানে। ফলো অনে পড়ে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে ইসলামী ব্যাংক আবারও বিসিবি নর্থ জোনের তোপে পড়ে। চা-বিরতির আগেই হারায় টপ অর্ডারের ৪ ব্যাটসম্যানকে। বিরতির পর ফিরে এসে ১১৬ রানে হারায় শেষ ৬ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে করে  মাত্র ১৭০ রান। দ্বিতীয় ম্যাচেও ফ্লপ ব্যাটসম্যানরা। তাসামুল ১৫, লিটন ৯, মুমিনুল শূন্য, আফিফ ১৬, আশরাফুল ১৬ ও অলোক কাপালি শূন্য রানে সাজঘরে ফিরেন। মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন ৩২ ও  সোহাগ গাজী ৫০ রান করে পরাজয়ের ব্যবধান কমিয়ে আনেন।

সংক্ষিপ্ত  স্কোর : বিসিবি নর্থ জোন : প্রথম ইনিংস ৪১৫

ইসলামী ব্যাংক ইষ্ট জোন : প্রথম ইনিংস ২১৭ (তাসামুল ৫৬, লিটন ৬৯, মুমিনুল ২১, আফিফ ৬, আশরাফুল ১১, কাপালী ২, জাকের ৫, সাইফউদ্দিন ২০, গাজী ১৩, রাহী ০, খালেদ ০*; শফিউল ১/৫০, ইয়াসিন ৪/৩৯, তাইজুল ১/৬৪, শরিফুল ৪/৩৩, আরিফুল ০/২০)।

ইসলামী ব্যাংক ইষ্ট জোন : দ্বিতীয় ইনিংস ১৭০ (তাসামুল ১৫, লিটন ৯, মুমিনুল ০, আফিফ ১৬, আশরাফুল ৮, সাইফউদ্দিন ৩২, কাপালী ০, জাকের ১৬, গাজী ৫০, রাহী ৫, খালেদ ০*; শফিউল ৩/২৮, তাইজুল ১/৬৫, আরিফুল ০/১৬, শরিফুল ৩/২১, ইয়াসিন ৩/১৬, শান্ত ০/১০)।

ফল : বিসিবি নর্থ জোন ইনিংস ও ২৮ রানে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : ইয়াসিন আরাফাত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ