ঢাকা, শুক্রবার 20 April 2018, ৭ বৈশাখ ১৪২৫, ৩ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কাশ্মীরের মুসলিম যাযাবর সম্প্রদায়ের মেয়েরা ভুগছে নিরাপত্তাহীনতায়

কাশ্মীরে একটি মুসলিম যাবার সম্প্রদায়ের পরিবার

১৯ এপ্রিল, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস/ডেইলি মেইল : ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে মুসলিম যাযাবর সম্প্রদায়ের বাসিন্দা আমজাদ আলির চলতি বছর জম্মু থেকে কাশ্মীরের পাহাড়গুলোর দিকে যাত্রা অন্য বছরের চেয়ে দীর্ঘ হবে।

প্রতিবছর ৪০ বছরের আমজাদ ও তার বাকারওয়াল সম্প্রদায় তাদের রাসানার বাড়িঘর ছেড়ে মে মাসের মাঝামাঝি ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের গ্রামগুলোতে পাড়ি জমায়। তাদের গন্তব্য থাকে সবুজ বনাঞ্চলগুলো, যেখানে পশুপাখি বাস করে। গ্রীষ্ম মৌসুমে পশু শিকার করে তারা।

আমজাদ জানান, ভয় আর শঙ্কার কারণে এ বছর তাদের আগেই চলে যেতে হচ্ছে।

ধর্ষণের পর হত্যাকা-ের শিকার আট বছরের আসিফার চাচা আমজাদ। চলতি বছরের জারুয়ারিতে শিশুটিতে মন্দিরে নিয়ে গণধর্ষণ করে ভারতীয় পুলিশের এক কর্মকর্তা ও তার সহচররা। ঘটনাটি সারাবিশ্বে ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দিয়েছে।

পুলিশের প্রতিবেদনের পর কাশ্মীরের হিন্দু অধ্যুষিত রাসানা অঞ্চলটি সমালোচনার কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। পুলিশ প্রতিবেদন মতে, আটজন মিলে ধর্ষণ ও হত্যা করেছে আসিফাকে- যাদের সবাই হিন্দু। মুসলিম যাযাবর গোষ্ঠীটিকে হিন্দুপ্রধান গ্রাম থেকে বের করে দেয়ার জন্য এই ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলেও পুলিশের প্রতিবেদনে বেরিয়ে এসেছে।

আমজাদ বলেন, ‘আমরা আগেভাগেই চলে যাচ্ছি। কারণ এখানকার হিন্দুরা আমাদের ওপর খুব ক্ষুব্ধ। তারা চায় না, আমরা এখানে বাস করি। আমরা ভয় থেকে পালিয়ে থাকতে চাইলেও ভয় আমাদের পিছু ছাড়ছে না। আমরা আমাদের শিশুদের নিয়ে উদ্বিগ্ন।’

আসিফার ওই ঘটনার পর কাশ্মীরের উপত্যকার এই যাযাবর সম্প্রদায়টিই যেন ভেঙে পড়েছে। মেয়েটির আত্মীয়রাও নিজেদের অরক্ষিত মনে করছে।

আসিফার আরেক চাচা মোহাম্মদ ইউসুফ- যার কাছে ছোটবেলা থেকে বড় হয়েছে আসিফা- জানান, মাসের শুরুতেই তারা তাদের বাড়িঘর ছেড়ে কারগিলের দিকে রওনা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘চারপাশে শুধু ভয় আর শঙ্কা। সেখানে আমাদের জমি আছে, বাড়ি আছে। চলে আসার আগে পুলিশকে বলে এসেছি আমাদের বাড়িঘর দেখে রাখতে।’

ইউসুফ জানান, কয়েকটি ছাড়া রাসানার প্রত্যেকটি মুসলিম পরিবার গ্রাম ছেড়েছে। তিনি বলেন, ‘কয়েক দশক ধরে আমরা সেখানে বাস করে আসছি। যা হয়েছে, তা আমাদের হৃদয়কে ভেঙে টুকরো টুকরো করে দিয়েছে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ