ঢাকা, শনিবার 21 April 2018, ৮ বৈশাখ ১৪২৫, ৪ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আদমদীঘিতে পরকীয়ার জেরে স্কুল শিক্ষক খুন ॥ স্বামী-স্ত্রী আটক

আদমদীঘি (বগুড়া) সংবাদদাতা : পরকিয়ায় আসক্ত এক স্কুল শিক্ষককে কুপিয়ে ও গোপনাঙ্গ কেটে খুনের করার ঘটনা ঘটেছে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার ডুমুরীগ্রাম গ্রামের মধ্যপাড়ায়। এঘটনায় পুলিশ স্বামী-স্ত্রীকে আটক করেছে। 

জানা গেছে, উপজেলার নসরতপুর ইউনিয়নের ডুমুরীগ্রাম গ্রামের মধ্যপাড়ার বাসিন্দা ওই গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রশিদ (৫৭) শিক্ষকতার পাশাপাশি মাছ চাষ ব্যবসা করে আসছিল। গ্রামে থাকা তার পুকুরে চাষ করা মাছের খাদ্য দিতে প্রায়ই তার পুকুরে যেতেন। এর এক পর্যায়ে পুকুর পাশের বাসিন্দা কৃষক আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী আফরোজা বেগমের সাথে গল্প করা থেকে শুরু হয় পরকিয়া। দীর্ঘদিন ধরে পরকিয়া চলার সময় প্রায় বছর খানেক পুর্বে পাড়া-প্রতিবেশীরা তাদের হাতেনাতে ধরে ফেলেন। এ নিয়ে গ্রাম্য শালিসে ওই শিক্ষকের তিন লাখ টাকা জরিমানা করে। এঘটনার পর কৃষক আব্দুর রাজ্জাক তার স্ত্রী আফরোজাকে নিজ আয়ত্বে রাখতে পারলেও শিক্ষক রশিদ পরনারীর লোভ সামলাতে পারেনি। ওই ঘটনার কিছু দিন পর থেকে সে ফের আফরোজাকে তার খপ্পড়ে ফেলার চেষ্টা করে আসছে। ঘটনাটি আফরোজা বেগম তার স্বামীকে অবহিত করে। এর থেকে তারা পথের কাঁটা রশিদ মাস্টারকে শায়েস্তা করার পরিকল্পনা করে। নিহত রশিদের ভায়রা রেজাউল ইসলাম বলেন, রশিদ প্রতিদিনের মত বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে পুকুরে মাছের খাবার দিতে যাবার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ে বাড়িতে ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজি শুরু করে। শুক্রবার সকালে গ্রামবাসী ওই পুকুরের কিছু দূরে থাকা ভিটায় রশিদ মাস্টারের লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ