ঢাকা, বুধবার 25 April 2018, ১২ বৈশাখ ১৪২৫, ৮ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বাদীকে মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে আটকে রাখার অভিযোগ

কালিয়াকৈর সংবাদদাতা: গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মধ্যপাড়া ইউনিয়নের আমদাইর গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মামলার বাদী রাসেল কবীর মানিককে কৌশলে মাতৃছায়া নামক এক মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও নিরাময় কেন্দ্রে আটকে রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে।বড় ভাইদের সাথে পৈতৃক জমি সংক্রান্ত বিরোধ দীর্ঘদিন চলে আসলেও গতবৃহস্পতিবার সকালে মাতৃছায়া নামক একটি মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রের প্রধান নির্মল চন্দ্র ঘোষের  নেতৃত্বে ৬-৭ জন যুবক একটি সাদা রঙের মাইক্রোবাস নিয়ে আমদাইর গ্রামে যান। সেখানে বড় ভাইদের সাথে পৈতৃক জমি সংক্রান্ত  বিরোধে মামলার বাদী রাসেল কবীর মানিককে সকালে মায়ের কবরের পাশ থেকে নির্মল চন্দ্র ঘোষ ডিবি পুলিশের পরিচয় দেন। পরে মানিককে হাত পা বেধে তাদের ব্যবহৃত সাদা মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে আসেন তার মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও নিরাময় কেন্দ্রে। সেখানে মনিককে প্রথমে জোড় পূর্বক মাথার চুল ন্যাড়া করে বেধরক মারধর করা হয়। পরে তার কাছে ৪ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে। এ খবর পেয়ে মানিককের স্বজনরা কালিয়াকৈর বাসষ্টেশন এলাকায় অবস্থিত নির্মল চন্দ্র ঘোষের মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও নিরাময়  কেন্দ্রে গেলে কয়েক জন ভাড়াটিয়া লোকজন মানিকের সাথে দেখা করতে দেয় না। এখবর মানিকের স্ত্রী নায়ার সুলতানা স্থানীয় প্রেসক্লাবে গিয়ে সাংবাদিকদের সহযোগিতা চান। পরে সাংবাদিকরা ওই নিরাময় কেন্দ্রে গিয়ে মানিককে ছেড়ে দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করলে  ওই নিরাময় কেন্দ্রের মালিক গত তিন দিনের বিল হিসাবে ৬০ হাজার টাকা দাবী করেন।
ওই সময় কয়েকজন সাংবাদিক প্রতিবাদ করলে বিনাশর্তে মানিককে তার স্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন। উদ্ধারকৃত মানিক  হলেন, কালিয়াকৈর উপজেলার আমদাইর এলাকার কাইয়ুম আলীর ছেলে  রাসেল কবীর মানিক (৫৫)।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ