ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 April 2018, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫, ৯ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আজ সাটুরিয়া ট্রেজেডির ২৯ বছর

শিকদার শামীম আল মামুন, সাটুরিয়া : আজ ২৬ এপ্রিল। দেশের ইতিহাসে এক শোকাবহ দিন। সাটুরিয়া ট্রেজেডির ২৯ বছর। ১৯৮৯ সালের এই দিনে মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া উপজেলায় ভয়াবহ প্রলয়ংকারী ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে ১ হাজার তিনশত জন মানুষের মৃত্যু হয়। আহত হয়েছিল ১২ হাজার মানুষ। বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৮০-৩৫০ কিলোমিটার। ঘূর্ণিঝড়টি সাটুরিয়াসহ পার্শ্ববর্তী দৌলতপুর উপজেলায়ও আঘাত হানে।  দিবসটি উপলক্ষে উপজেলায় বিভিন্ন সংগঠন নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।
১৯৮৯ সালের ২৬ শে এপ্রিল বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার সময় উপজেলার সাটুরিয়া, হরগজ, তিল্লি ও ফুকুরহাটি ইউনিয়নের ২০টি গ্রামে মাত্র পাঁচ মিনিটের প্রলয়ংকারী ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে সবকিছু ল-ভ- হয়ে যায়। লক্ষাধিক মানুষ ঘর ছাড়া হয়েছিল। পরদিন সকালে তৎকালিন রাষ্ট্রপতি হুসেইন মোহাম্মদ এরশাদ ও ঢাকা সিটি করপোরেশনের তৎকালীন মেয়র কর্নেল মালেকসহ অনেকেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
প্রত্যক্ষদর্শী মো. ক্বারী মুক্তার আলী (৪৫) আবেগ জড়িত কণ্ঠে জানান, তখন ছিল রমজান মাস। ইফতারের পূর্ব মুহূর্তেই দক্ষিণ পূর্ব আকাশ থেকে ধেয়ে আসে ঘূর্ণিঝড়। মাত্র পাঁচ মিনিটেই সব কিছু শেষ হয়ে যায়। প্রাণ হারায় ১ হাজার তিনশত মানুষ। তিনি আরো জানান, আজও অনেকেই পঙ্গুত্ব বরণ করে বেঁচে আছে।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. বছির উদ্দিন ঠান্ডু জানান, ২৬ এপ্রিল ’৮৯তে বাংলাদেশের ইতিহাসে এক মহাপ্রলয়ংকারী ঘূর্ণিঝড় বয়ে যায় আমাদের উপজেলায়। ঘূর্ণিঝড়ে নিহত ও আহতদের স্বরণে উপজেলায় স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করার পরিকল্পনা রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ