ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 April 2018, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫, ৯ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

গণতন্ত্র ধ্বংস করার জন্য বাকশালী কায়দায় ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম চট্টগ্রাম মহানগরের মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ চট্টগ্রাম মহানগর উদ্যোগে গতকাল ২৫ এপ্রিল দুপুর ১২ টায় এক মতবিনিময় সভা চট্টগ্রাম মহানগর সমন্বয়কারী মাওলানা এম এ কাসেম ইসলামাবাদীর সভাপতিত্বে ও ইসলামী ঐক্যজোটের চট্টগ্রাম মহানগরীর সদস্যসচিব আনোয়ার হোসাইন রব্বানীর সঞ্চালনায় একটি রেষ্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান আবদুর রহিম ইসলামাবাদী, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আলহাজ্ব আবু সুফিয়ান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা শেখ মুজিবুর রহমান, বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির কেন্দ্রীয় স্থায়ী কমিটি সদস্য ও চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইলিয়াস, বাংলাদেশ ন্যাপের সভাপতি ওসমান গণি সিকদার, এনপিপির চট্টগ্রাম সভাপতি আনোয়ার সাদেক, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের দক্ষিণ জেলা সভাপতি মনির আহমদ নদিম, কেন্দ্রীয় যুব জমিয়তের সহসাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা এনায়েতুল্লাহ ফারুকী, দক্ষিণ জেলা সাধারণ সম্পাদক মাওলানা সামশুল আলম, মুসলিম লীগ’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কাজী নাজমুল হাসান সেলিম, লেবার পার্টির সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, বিজেপির চট্টগ্রাম মহানগর সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ কবীর লিটন, কল্যাণ পার্টির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. মহিউদ্দিন, ইসলামী ঐক্যজোটের সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ মাহমুদুল হাসান, মাওলানা হাবিবুর রহমান, হাফেজ মোহাম্মদ প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, দেশকে ইসলাম ও গণতন্ত্র শূন্য করার জন্য বাকশালী কায়দার ক্ষমতাকে কুক্ষিগত করার জন্য দেশ পরিচালিত হচ্ছে করছে। মানুষের অধিকার হরণ করেছে। তিনি আরো বলেন, বৃটিশ বিরোধী আন্দোলনে এদেশের আলেম ওলামা ও সাধারণ জনগণ ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে বৃটিশ থেকে এদেশকে মুক্ত করেছেন। ২০ দলীয় জোটকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে বর্তমান অনির্বাচিত সরকারকে চির বিদায়ের জন্য সর্বস্তরের জনগণকে নিয়ে দুর্বার আন্দোলন করার আহবান জানান। প্রধান বক্তার বক্তব্যে আবু সুফিয়ান বলেন, দেশে আজ গণতন্ত্র নেই, নেই মানুষের মৌলিক অধিকার, এ অধিকার রক্ষার জন্য আমরা যে আন্দোলন করছি, এ আন্দোলনে গণতন্ত্রকামী সকল দলকে আমাদের সাথে শরীক হয়ে গণ আন্দোলনের মাধ্যমে এই স্বৈরাচারী সরকারকে হঠাতে হবে। তিনি আরো বলেন, দেশের সকল ব্যাংক আজ শূন্য করে ফেলেছে। আগামীতে আপনাদের রক্তও খেয়ে ফেলবে। সময় ক্ষেপণের আর সময় নেই এখনই ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে এই ডাইনী সরকারকে বিদায় করতে হবে।  সভাপতির বক্তব্যে এম এ কাসেম ইসলামাবাদী বলেন, বেগম জিয়া এক টাকাও দুর্নীতি না করে বেগম খালেদা জিয়াকে যদি জেলে যেতে হয়, তবে হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত শেখ হাসিনা ও অন্যান্যদের কি শাস্তি হওয়া উচিত ভবিষ্যতে দেশের জনগণের আদালতেই নির্ধারিত হবে। বহুদলীয় গণতন্ত্র, আইনের শাসন, বৈষম্য ও বঞ্চনাহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষে দেশবাসীকে সরকারের একদলীয় শাসনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ