ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 April 2018, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫, ৯ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে খুলনা জেলার ঐতিহ্যের ১৩৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বর্ণাঢ্য আয়োজনে খুলনা দিবস পালিত

খুলনা অফিস : নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে খুলনা জেলার ঐতিহ্যের ১৩৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বিভিন্ন সংগঠনের উদ্যোগে এ সব কর্মসূচি পালিত হয়।
খুলনা দিবস পালনে বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি দিনব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করে। কর্মসূচি অনুযায়ী সকাল ৯টায় বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে র‌্যালি ও উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়। বাউল, ঘোড়াগাড়ি, পালকিতে জামাই-বউ, স্থানীয় রোভার স্কাউট, সি-স্কাউটসহ ব্যান্ডবাদক দলের উপস্থাপনায় র‌্যালিটি নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এরপর কেডিএ কমিউনিটি সেন্টরে খুলনা মেজবান ও সন্ধ্যায় নগরীর শহীদ হাদিস পার্কে সংক্ষিপ্ত আলোচনা এবং লোকজ ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য আয়োজনের সমাপ্তি হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও বর্ণ্যাঢ্য র‌্যালীতে উপস্থিত ছিলেন খুলনা-আসনের সংসদ সদস্য মুহাম্মদ মিজানুর রহমান মিজান, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মো. লোকমান হোসেন মিয়া, খুলনা জেলা প্রশাসক মো. আমিন উল আহসান, আওয়ামী লীগ এর কেন্দ্রীয় নেতা এস এম কামাল হোসেন, খুলনা সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, দৈনিক পূর্বাঞ্চল সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সনি, খুলনা সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক, মেয়র প্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম মঞ্জু, মেয়র প্রার্থী মিজানুর রহমান বাবু, মেয়র প্রার্থী এস এম শফিকুর রহমান মুশফিক, উন্নয়ন কমিটির সভাপতি শেখ মোশাররফ হোসেন, মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ জামান, সাবেক সভাপতি এস এম দাউদ আলী, পাসপোর্ট অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আবু সাইদ, তথ্য অধিদপ্তরের পরিচালক মো. জাবেদ ইকবাল, বিশিষ্ট পাট ব্যবসায়ী শরীফ ফজলুর রহমান, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ মো. জাফর ইমাম, প্যানেল মেয়র রুমা খাতুন, সেভেন রিংস এর উপদেষ্টা এরশাদ আলী আজাদ, সিপিবির কেন্দ্রীয় নেতা এস এ রশীদ, নগর সভাপতি এইচ এম শাহাদাত হোসেন, ওয়ার্কার্স পার্টির শেখ মফিদুল ইসলাম, বাসদ এর জানার্দন দত্ত নান্টু, প্রবীণ আইনজীবী আব্দুল্লাহ হোসেন বাচ্চু, বিশিষ্ট সাংবাদিক শেখ দিদারুল আলম, ন্যাপ এর তপন কুমার রায়, সহ-সভাপতি মো. নিজামউর রহমান লালু, শাহিন জামার পন, শেখ আবুল কাশেম, অধ্যাপক মো. আবুল বাসার, মামনুরা জাকির খুকুমনি, যুগ্ম-মহাসচিব এডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ, মো. মনিরুজ্জামান রহিম, মিনা আজিজুর রহমান, আফজাল হোসেন রাজু, মো. বদিয়ার রহমান (শিক্ষক), শেখ মুশার্রফ হোসেন, সৈয়দ মনোয়ার আলী, আসাদুজ্জামান মুরাদ, মো. খলিলুর রহমান, মো. রকিব উদ্দিন ফারাজী, শেখ মোহাম্মদ আলী, মো. মিজানুর রহমান জিয়া, সৈয়দ এনামুল হাসান ডায়মন্ড, জুবায়ের আহমেদ জবা, শামীমা সুলতানা শিলু, এডভোকেট বাবুল হাওলাদার, এম এ কাশেম, এস এম ইকবাল হোসেন বিপ্লব, এস এম আকতার উদ্দিন পান্নু, মো. রবিউল ইসলাম রবি, এস এম দেলোয়ার হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার শেখ আব্দুল্লাহ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আবু জাফর, সৈয়দ আলী রেজা নান্নু, মো. আব্দুস সালাম, মো. আরজুল ইসলাম আরজু, শিকদার আব্দুল খালেক, রসু আক্তার, শফিকুর রহমান পলাশ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. ইদ্রিস আলী খান, বিশ্বাস জাফর আহমেদ, শেখ আশিকুর রহমান অনি, ইসরাত আরা হিরা, অধ্যক্ষ সাজেদা ইসলাম, এডভোকেট এ বি এম মোস্তফা জামান প্রমুখ। এছাড়া খুলনা দিবস উপলক্ষে নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ভবন ও স্থাপনা সমূহ লাইটিং এর মাধ্যমে সাজ-সজ্জা করা হয়।
১৮৪২ সালে ভৈরব-রূপসা বিধৌত নয়াবাদ থানা ও কিসমত খুলনাকে কেন্দ্র করে নতুন জেলার সদর দফতর স্থাপিত হয়। খুলনা মহাকুমা প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর ব্রিটিশদের প্রশাসনিক এলাকা বৃদ্ধি এবং ভৌগোলিক অবস্থানের কারণে খুলনার গুরুত্ব বাড়তে থাকে। মাত্র ৪০ বছরের ব্যবধানে চার হাজার ৬৩০ বর্গ মাইল এলাকা, ৪৩ হাজার ৫’শ জনসংখ্যা অধ্যুষিত খুলনা, বাগেরহাট ও সাতক্ষীরাকে নিয়ে ১৮৮২ সালের ২৫ এপ্রিল গেজেট নোটিফিকেশনের মাধ্যমে খুলনা জেলা প্রতিষ্ঠিত হয়। খুলনার প্রথম জেলা ম্যাজিস্ট্রেট টমি ডাব্লিউ এম ক্লে’র দায়িত্ব নেয়ার মাধ্যমে খুলনা জেলার কার্যক্রম শুরু হয়।
বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ জামান বলেন, ‘কালের বিবর্তনে সময়ের চাহিদায় জেলা শহর হিসেবে প্রতিষ্ঠার পর ১০০ বছরে এ অঞ্চলের ব্যাপক উন্নতি সাধিত হয়। কিন্তু বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর বিভিন্ন সরকারের আমলে এ অঞ্চল অবহেলা ও  বৈষম্যের শিকার হয়। এ অঞ্চলের ব্যাপক সম্ভাবনা ও সুযোগ-সুবিধা থাকা সত্ত্বেও বিভিন্ন সরকারের একপেশে নীতির কারণে এ অঞ্চলটি আর্থসামাজিক উন্নয়নে বাধাগ্রস্থ হয়ে পিছিয়ে পড়ে। বর্তমান সরকারের যুগান্তকারী কিছু প্রকল্প গ্রহণ ও পদ্মা সেতুসহ বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়নে এ অঞ্চল অর্থনৈতিকভাবে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ