ঢাকা, বৃহস্পতিবার 26 April 2018, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫, ৯ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সাঁতারু ক্লসের নতুন চমক

মোহাম্মদ জাফর ইকবাল : এবারের কমনওয়েলথ গেমসে সবার দৃষ্টি নিবদ্ধ চ্যাড লি ক্লসের দিকে। কারণ এবার নতুন ইতিহাস গড়ার সুযোগ এ দক্ষিণ আফ্রিকান সাঁতারুর। চারবার বাটারফ্লাইয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। টানা তৃতীয়বার এখন কমনওয়েলথ গেমসে এ ইভেন্টে স্বর্ণপদক জেতার প্রথম নজির স্থাপন করেছেন। ৫০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে স্বর্ণ জেতার পর গেমস রেকর্ড গড়ে ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়েও চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন তিনি। আর সাইক্লিংয়ে একেবারে নতুন মুখ চার্লি ট্যানফিল্ড পুরুষদের ৪০০০ মিটার ব্যক্তিগত পারসুইটে স্বর্ণ জিতে বিস্ময়ের জন্ম দিয়েছেন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের এ ছাত্র। তবে আগেরদিন গেমসের নতুন রেকর্ড গড়ে ১০০ মিটার ব্রেস্টস্ট্রোকে স্বর্ণজয়ী ব্রিটিশ সাঁতারু এ্যাডাম পিয়েটি নিজেকে নিয়ে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। শূটার মিক গল্ট ও ফিলিপ এ্যাডামস ১৮টি করে পদক জয়ের কমনয়েলথ রেকর্ড ধরে রেখেছেন। এবার গেমসে আসার আগে ক্লসের কমনওয়েলথ পদকের সংখ্যা ছিল ১২টি।
এবার তিনি ৭ ইভেন্টে অংশ নেন। সবগুলোতেই তিনি পদক জিততে সক্ষম হন। ফলে এবার তিনি এই দু’জনকে ছাড়িয়ে নতুন রেকর্ড  গড়েবন। টানা দুটি স্বর্ণপদক জেতা হয়েছে। ৫০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে স্বর্ণ জিতে শুরু করেছিলেন ক্লস। এবার তিনি ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়েও স্বর্ণপদক জয় করলেন। কমনওয়েলথ গেমসের রেকর্ড ১ মিনিট ৫৪ সেকেন্ড টাইমিং গড়ে তিনি চ্যাম্পিয়ন হন। সবমিলিয়ে ক্যারিয়ারের ষষ্ঠবার কমনওয়েলথ চ্যাম্পিয়ন হলেন তিনি।
বয়স মাত্র তখন ১৯ ছুঁয়েছে। ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিকে ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে নেমে সবাইকে চমকে দিলেন। কিংবদন্তি মার্কিন সাঁতারু, ‘ফ্লাইং ফিশ’ খ্যাত মাইকেল ফেলপসকে হারিয়ে দিলেন চ্যাড লি ক্লস। দক্ষিণ আফ্রিকান এ সাঁতারু ফেলপসকে সিংহাসনচ্যুত করে সারাবিশ্বেই হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলেন।
তারপর থেকেই বাটারফ্লাইয়ে আলোচনায় তিনি। এবার কমনওয়েলথ গেমসে একটি ইতিহাস গড়ার সুযোগ ছিল তার। ৭ ইভেন্টে অংশ নিয়েছেন। সবগুলোতে পদক জিততে পারলে গেমসের ইতিহাসে সর্বাধিক ১৯ পদক জয়ের রেকর্ড গড়তেন তিনি। কিন্তু ৫টি পদক জিততে পেরেছেন ক্যারিয়ারের তৃতীয় কমনওয়েলথ গেমসে অংশ নিয়ে। ফলে ১৭ পদক নিয়ে রেকর্ড ১৮ পদক জয়ের রেকর্ডটাই ছোঁয়া হয়নি তার। কিন্তু ১০০ ও ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে গেমস রেকর্ড গড়ে এবং ৫০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে স্বর্ণপদক জিতে হ্যাটট্রিকের অনন্য কৃতিত্ব দেখিয়েছেন। ২৫ বছর বয়সী এ প্রোটিয়া সাঁতারুর এখন অপেক্ষা পরবর্তী কমনওয়েলথ গেমস পর্যন্ত। দুটি পদক জিতলেই গড়বেন নতুন রেকর্ড। ২৯ বছর বয়স পর্যন্ত অপেক্ষায় থাকতে হবে তাকে।
২৫ বছর বয়সী ক্লস ৪ বার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন, ২০১২ অলিম্পিকে স্বর্ণপদক জিতেছেন। তবে শ্যুটার মিক গল্ট ও ফিলিপ এডামস ১৮টি করে পদক জয়ের কমনয়েলথ রেকর্ড ধরে আছেন। ক্লসের কমনওয়েলথ পদকের সংখ্যা এর আগ পর্যন্ত ছিল ১২টি। এবার অংশ নেয়া ৭ ইভেন্টেই যদি তিনি পদক জিততে সক্ষম হতেন সেক্ষেত্রে দু’জনকে ছাড়িয়ে নতুন রেকর্ড গড়তেন। অবশ্য, ব্রিটিশ তারকা গল্ট এবং অস্ট্রেলিয়ার এডামস ৬টি কমনওয়েলথ আসরে অংশ নিয়ে ১৮টি করে পদক জিতেছেন। কিন্তু মাত্র দুইবার অংশ নিয়েই ১২ পদক জিতেছেন ক্লস।
এবার তৃতীয়বারের মতো নেমেছিলেন এ প্রতিযোগিতায়। আর এ তৃতীয়বারেই হয়ে যেতে পারত নতুন ইতিহাস। সেই শুরুটা চ্যাম্পিয়ন হয়ে ভালভাবেই করেছিলেন তিনি। ৫০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে অবশ্য ক্লসের জোর প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন গতবারের স্বর্ণজয়ী বেন প্রাউড। কিন্তু ফাইনালে তিনি অনুপস্থিত ছিলেন। শেষ হিটে ক্লসকে পেছনে ফেলেছিলেন, কিন্তু ফলস স্টার্টের জন্য বাদ পড়েন তিনি। সেই সুযোগে ক্লস জিতে গেলেন ২৩.৩৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে। জয়ের পর ক্লস বলেন, আমি আমার জীবনে কখনও চার নম্বর লেনে ৫০ মিটারের ফাইনালে অংশ নেইনি। আমি এটা নিয়ে বেশি কথা বলতে চাইনা। কিন্তু বেন প্রাউড যদি ফাইনালে থাকতেন, নিশ্চিতভাবেই তিনি স্বর্ণ জিততেন। সৌভাগ্যজনকভাবে কিংবা দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমি জিতলাম এতেই খুশি। তবে ওই ইভেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর ক্লস রেকর্ড গড়া নিয়ে বলেছিলেন, আমি এটা বলতে চাই না যে ৭ ইভেন্টেই স্বর্ণ জিততে এসেছি। কারণ আমি সেটা কোনভাবেই বলতে পারি না।
আমি হয়তো ২/৩টি স্বর্ণপদক জিততে পারব, সাতটি নয়। ক্লস এবার ৫০ মিটার বাটারফ্লাই ছাড়াও ১০০ ও ২০০ মিটারের বাটারফ্লাই এবং ফ্রিস্টাইল এবং ৪ী১০০ মিটার ফ্রিস্টাইল ও মিডলে রিলেতে অংশগ্রহণ করেছেন।
ক্লস শুরু থেকেই আলোচনায় এবার শুধু একটি রেকর্ড ছোঁয়া কিংবা তা পেরিয়ে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে বলে। আগের দুইবার কমনওয়েলথ গেমসে অংশ নিয়ে তিনি জিতেছিলেন মোট ১২ পদক। এবার যে ৭ ইভেন্টে অংশ নেবেন সবগুলোতে পদক জিততে পারলে গেমসের ইতিহাসে সর্বাধিক পদক জয়ের রেকর্ড গড়তেন তিনি। ৫০ মিটারের পর ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়েও এবার স্বর্ণ জিতে শুরু করেন তিনি। ২০০ মিটারে করেন নতুন গেমস রেকর্ড।
তবে ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে রৌপ্য জিততে সক্ষম হন। কিন্তু বাটারফ্লাইয়ের ১০০ মিটারে আবার নিজেকে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ফিরে পেয়েছেন। এবার গেমসের রেকর্ড ৫০.৬৫ সেকেন্ড টাইমিংয়ে তিনি স্বর্ণপদক জিতলেন। ইংল্যান্ডের জেমস গাই ৫০.৯৫ সেকেন্ড সময় নিয়ে রৌপ্য এবং অস্ট্রেলিয়ার গ্র্যান্ট আরভিন ৫১.৫০ সেকেন্ডে তৃতীয় হয়েছেন। বাটারফ্লাইয়ের তিন ইভেন্টেই স্বর্ণপদক জেতার মাধ্যমে এক অনন্য হ্যাটট্রিক গড়েছেন তিনি। সবমিলিয়ে গেমসে তার পদকের সংখ্যা দাঁড়ায় ১৬টি। দুটি রিলে ইভেন্টে নিশ্চিতভাবেই পদক জিতবেন এটাই বলছিলেন সবাই। কিন্তু এ সাঁতার বিস্ময় সেটা পারেননি অন্যদের ব্যর্থতায়। ক্লস আলোচনায় এসেছিলেন ‘ফ্লাইং ফিশ’ খ্যাত কিংবদন্তি মাইকেল ফেলপসকে ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিকে হারিয়ে। এর আগ পর্যন্ত ফেলপস ছিলেন বাটারফ্লাইয়ের ২০০ মিটারের ইভেন্টে অপ্রতিরোধ্য এক স¤্রাট। কারও কাছে হারেননি তিনি। ক্লসের কাছে সেবার হারলেও ২০১৬ সালের রিও ডি জেনিরো অলিম্পিকে প্রতিশোধ নিয়ে নেন। ১০০ ও ২০০ মিটার বাটারফ্লাইয়ে হেরে গিয়েছিলেন ক্লস। কিন্তু এখন আর ফেলপস নেই।
তাই কমনওয়েলথ গেমসে তার রেকর্ড হওয়াটা ছিল খুবই স্বাভাবিক। বাটারফ্লাইয়ের স্বর্ণপদকের হ্যাটট্রিক করে অনন্য ইতিহাস গড়ে সে পথে এগিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে রৌপ্য জিতলেও ২০০ মিটারে কিছুই করতে পারেননি। আর ৪ ী ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলেও দল হয়েছে ব্যর্থ। ৪x ১০০ মিটার মিডলে রিলেতে অবশ্য কোনক্রমে ব্রোঞ্জ জয়ের স্বাদ পান। সবমিলিয়ে এবার ৫টি পদক জিততে পেরেছেন। ফলে কমনওয়েলথ গেমসে তার মোট পদক সংখ্যা দাঁড়িয়েছ ১৭টি।
৭টি স্বর্ণ, ৩টি রৌপ্য ও ৭টি ব্রোঞ্জ রয়েছে এর মধ্যে। এখনও গেমসের রেকর্ড মোট জেতা পদক সংখ্যা থেকে তিনি ১টি পিছিয়েই আছেন। পরবর্তী কমনওয়েলথ গেমস পর্যন্ত যদি নিজেকে ধরে রাখতে পারেন, সেক্ষেত্রে ক্যারিয়ারের চতুর্থ অংশগ্রহণেই তিনি হয়ত রেকর্ডটা গড়বেন। সাঁতার বিশ্বের ভক্ত, সমর্থকরা সেই অপেক্ষায় থাকবেন। হয়ত অপেক্ষায় থাকবেন ক্লস নিজেও।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ