ঢাকা, শনিবার 28 April 2018, ১৫ বৈশাখ ১৪২৫, ১১ শাবান ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবস আজ

স্টাফ রিপোর্টার : আজ ২৮ এপ্রিল জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবস। ২০১৬ সাল থেকে জাতীয়ভাবে পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবস উদযাপন করছে বাংলাদেশ। এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় নির্ধারণ করা হয়েছে সুস্থ শ্রমিক,নিরাপদ জীবন-নিশ্চিত করে টেকসই উন্নয়ণ। দিবসটি উপলক্ষে আজ শনিবার বিকেলে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।
এই উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু। তিনি বলেন  শ্রমিকের স্বাস্থ্য যদি ভাল না থাকে এবং কর্মস্থল যদি নিরাপদ না হয় তাহলে উৎপাদন ব্যবস্থায় নেতীবাচক প্রভাব পড়ে। শ্রমিকের জীবন ঝুঁকিতে রেখে কোভাবেই শিল্প উন্নয়ন সম্ভব নয়। আর এটি করতে শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের জন্য শোভন এবং স্বাস্থ্য সম্মত কর্মপরিবেশ নিশ্চিতের বিকল্প নেই।
মন্ত্রী  বলেন, দিবসটি উপলক্ষে ঢাকায় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় সড়কদ্বীপ সজ্জিতকরণ করা হবে। দিবসটির গুরুত্ব তুলে ধরে স্মরণিকা প্রকাশ করা হবে। বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বেসরকারি টেলিভিশনে আলোচনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকা, নারায়নগঞ্জ, গাজীপুর শিল্প এলাকায় তিনদিনব্যাপী ট্রাক-শো হবে।
২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল মর্মান্তিক রানা প্লাজা দুর্ঘটনা পরবর্তী সময়ে পেশাগত নিরাপত্তার বিষয়টি সামনে এসেছে।  শ্রমিকদের নিরাপত্তার বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে আমরা সকল কারখানাকে পরিদর্শনের আওতায় নিয়ে এসেছি। কলকারখানা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরকে শতভাগ ই-ফাইলিং এর আওতায় নিয়ে এসেছি। বাংলাদেশের শ্রম পরিদর্শন ব্যবস্থায় আধুনিকয়নে সম্প্রতি লেবার ইন্সপেকশন ম্যানেজমেন্ট এপ্লিকেশন লিমা  চালু করেছি। লিমা কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের তথ্য সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও বিশ্লেষণ ব্যবস্থাকে উন্নত করবে।
মন্ত্রী আরও জানান, বর্তমানে বিশ্বের ১০টি গ্রীন ফ্যাক্টরির মধ্যে বাংলাদেশেরই  ০৭ টি। এটি আমাদের জন্য গর্ব আর অহংকারের।  দিনে দিনে শিল্প কারখানার কর্মপরিবেশের উন্নয়ন হচ্ছে। আরও উন্নয়নের লক্ষে আমরা সামাজিক সংলাপের উপর গুরুত্ব দিচ্ছি। প্রতিটি কারখানায় সেইফটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। গর্মেন্টস কারখানার নিরাপদ অবস্থা বলতে যা বোঝায় যেকোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে অনেক ভালো অবস্থানে আছে। কারখানা সংস্কারে তদারকির জন্য বায়ারদের সংগঠন এলায়েন্স এর বাংলাদেশের সমন্ময়ক জেমস এফ মারিয়াটি বলেছেন গার্মেন্টস শিল্পের নিরাপদ কর্মপরিবেশের রোল মডেল হচ্ছে বাংলাদেশ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ